অদম্য মেধাবী ফাল্গুনী পেরেছে, ফাল্গুনীই পারবে

অদম্য মেধাবী ফাল্গুনী পেরেছে, ফাল্গুনীই পারবে

ক্যাম্পাস টুডে ডেস্কঃ ৩য় শ্রেণিতে থাকা অবস্থায় এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় হারিয়েছেন দুই হাত। ফলে শিক্ষাজীবনেও এসেছে অসংখ্য বাধা। তবুও দমে যাননি তিনি। জীবন সংগ্রামের নানা ধাপ অতিক্রম করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভাল ফলাফলের মাধ্যমে অনার্স শেষ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩.৫০ সিজিপিএ নিয়ে বর্তমানে অফিসার পদে চাকরি করছেন এই অদম্য মেধাবী।

জানা যায়, তখন সবে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী ফাল্গুনী। সমাজের অন্য দশটি বালকিার মতোই হেসে-খেলে বেড়ে উঠছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে তার জীবনে নেমে আসে মস্ত বড় বিপদ। সময়টা ২০০২ সাল। পাশের বাড়ির ছাদে বন্ধুদের সাথে খেলার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে হাতের কনুই পর্যন্ত পুড়ে যায়। দেশের চিকিৎসায় ভালো না হওয়ায় একসময় পাশ্ববর্তী দেশে নেয়া হয় তাকে।

জীবন সংগ্রামে সফল এই অদম্য মেধাবী মুখ ফাল্গুনী সাহা। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার গলাচিপায়। বাবার নাম জগদীশ চন্দ্র সাহা, মা ভারতী সাহা।

তত দিনে তার হাতে পঁচন ধরে গেছে। সেখানকার ডাক্তার বলেন, বড্ড দেরি হয়ে গেছে। এভাবে পঁচতে থাকলে এক সময় ক্যান্সার হয়ে যেতে পারে। তাই হাতের পঁচা অংশ কেটে ফেলতে হবে। এ সিদ্ধান্তের পর কনুই থেকে কেটে ফেলা হলো ফাল্গুনীর দুই হাত।

এরপর থেকে অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আজ তিনি সফল। শিক্ষাজীবনের বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে পড়াশুনা করছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে। সেখান থেকে অনার্সে ৩.৫০ সিজিপিএ নিয়ে বর্তমানে স্নাতকোত্তর পর্বে অধ্যয়নরত আছেন।

এখন তিনি একটি বেসরকারি কোম্পানির হিউম্যান রিসোর্স অফিসার। এক সময় মানুষ, সমাজ তাকে বোঝা মনে করলেও তিনি ঠিকই বুঝিয়ে দিয়েছেন নিজের সক্ষসতা। জানান দিয়েছেন নিজের ভেতরের প্রতিভাকে। সকলকে বুঝিয়েছেন, প্রমাণ দিয়েছেন নিজের যোগ্যতার।

দ্য ক্যাম্পাস টুডে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *