অনশনরত খুবির শিক্ষার্থীদের পাশে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক

অনশনরত খুবির শিক্ষার্থীদের পাশে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক

খুবি প্রতিনিধি

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) আমৃত‌্যু অনশনরত দুই শিক্ষার্থীর পাশে দাড়িয়েছেন সিটি মেয়র আলহাজ তালুকদার আব্দুল খালেক। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে আমরণ অনশনরত দুই শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলেন ও পরে উপচার্যের কার্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পাঁচজন প্রতিনিধির সাথে আলোচনা করে তাদের লিখিত বক্তব্য দিতে বলেন।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, শিক্ষার্থীদের কষ্ট হচ্ছে তাই আমি এসেছি। শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানিয়েছি যেনো তারা আজ দুপুর তিনটার মধ্যে তাদের বিষয়গুলো লিখিতভাবে জানায়। এরপর আমি এসে তাদের অনশন ভেঙে দিবো। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকেও বলেছি বিষয়টি মানবিকতার দৃষ্টিতে দেখতে।

শিক্ষার্থীদের মধ্যে আল আমিন হাজরা জানান, আমরা যে কোনো ভুল করিনি সেটাই লিখিত বক্তব্যে লিখবো। মেয়র মহোদয় আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন যে সাজাপ্রাপ্ত দুই শিক্ষার্থীর বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করা হবে এবং ৫ দফা আন্দোলনের সাথে জড়িত আর কাউকে হয়রানি করা হবে না।

উপাচার্য ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক নিয়ম-নীতি মেনে তারা দুঃখ প্রকাশ করলে প্রয়োজনে আমি আজই শৃঙ্খলা কমিটির সভা আয়োজন করবো এবং তাদের বিষয়টি সর্বোচ্চ সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করা হবে।

এসময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. মোসাম্মৎ হোসনে আরা, কেসিসির প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপুসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গতবছর খুবি শিক্ষার্থীদের ৫ দফা আন্দোলনের সময় দুই শিক্ষকের সাথে অসদাচরণ ও একাডেমিক কাজে বাধাদানের অভিযোগ এনে ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপ্লিনের ইমামুম ইসলাম সোহান(১৭ ব্যাচ) ও বাংলা ডিসিপ্লিনের মোবারক হোসেন নোমান (১৮ ব্যাচ) কে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ সাজা বাতিলের দাবিতে গত সোমবার সন্ধ্যা থেকে তারা আমরণ অনশন শুরু করেছেন।

৫ দফা দাবিগুলো নিম্নরূপ:
১. বেতন কমানো।
২. আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ।
৩.চিকিৎসা ব্যবস্থা উন্নত করা।
৪. অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে অবকাঠামো নির্মাণ।
৫. ছাত্রবিষয়ক সিদ্ধান্ত গ্রহণে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *