বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন

কেমন ছিল গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০!

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০, ২.০৮ পিএম
কেমন ছিল গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০!

সুপর্না রহমান, গণ বিশ্ববিদ্যালয়: করোনাভাইরাসের প্রকোপে নয়টি মাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও ২০২০ সালটি সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের (গবি) জন্য ঘটনাবহুল ছিল। এ বছরের আলোচিত ঘটনা নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন করেছেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও গণমাধ্যমকর্মী সুপর্ণা রহমান টুছি।

গণস্বাস্থ্য মেডিকেলের ঢাবি অধিভুক্তি

এ বছর ১৩ জানুয়ারিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয় গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিকেল কলেজ। প্রতি ব্যাচে ৫০ জন ভর্তির অনুমোদন দেয় ঢাবি ডিন’স কমিটি। বেসরকারি মেডিকেল কলেজ পরিচালনায় সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার আইন থাকলেও কোন পদক্ষেপ নেয়নি গণস্বাস্থ্য মেডিকেল। এরপর ২০ জুলাই, ২০১৯ থেকে ক্লাস, পরীক্ষা বর্জন করতে থাকে সকল ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। পরে যুক্ত হয় ইন্টার্ন চিকিৎসক ও জুনিয়র মেডিকেল অফিসারগণ। কর্তৃপক্ষের লিখিত আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করে ক্লাসে ফেরে শিক্ষার্থীরা।

নিজ প্রতিষ্ঠানে তালাবদ্ধ ডা. জাফরুল্লাহ

এ বছরের ১৪ জানুয়ারি নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে অবরুদ্ধ হন প্রতিষ্ঠানটির ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। প্রায় দেড় ঘন্টা তাকে এক কক্ষে তালাবদ্ধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের বাজেট ও মেয়াদ বৃদ্ধি সংক্রান্ত সাধারণ সভায় এসেছিলেন তিনি। আলোচনার এক পর্যায়ে ইউজিসি কর্তৃক বৈধ উপাচার্য নিয়োগ ও বিভিন্ন বিভাগের অনুমোদন প্রসঙ্গে কোনো প্রতিকার না পেয়ে তাঁকে ঘেরাও করেন ছাত্র প্রতিনিধিরা। পরে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আলোচনায় বসতে চাইলে শিক্ষার্থীরা তালা খুলে দেন।

ব্যায়ামাগারের উদ্বোধন

গবি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা ও পড়াশোনায় মনোযোগী করতে ২৫ জানুয়ারি ব্যায়ামাগার চালু করেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ট্রান্সপোর্ট চত্বরের পাশের ভবনে এটি স্থাপন করা হয়। সকাল সাড়ে ৮টা হতে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত শরীরচর্চা করতে পারবেন এখানকার শিক্ষার্থী ও শিক্ষাদাতারা। দুইশত টাকায় ফর্ম নিয়ে সদস্য হতে হয় এই ব্যায়ামাগারের।

গ্রামীণ উৎসবের মন্ডা-মিঠাই

মুজিব শতবর্ষে তৃতীয়বারের মতো পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়। ২ ফেব্রুয়ারি এই উৎসবের উদ্বোধন করেন ঢাকা-২০ আসনের এমপি ও ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বেনজীর আহমদ। ঐতিহ্যবাহী বাহারী পিঠা ও বাহারি সাজে সজ্জিত ছিল খেলার মাঠের ৩০টি স্টল। এ বিদ্যাপীঠের বিভিন্ন বিভাগ ও সংগঠনের শিক্ষার্থীরা পিঠা তৈরি করেন। দিনব্যাপী এই উৎসবটি গ্রাম বাংলার বিভিন্ন খেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মুখরিত ছিল। এবারের পিঠা উৎসবের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ।

গবিসাসের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান

ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠন গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (গবিসাস) ২০১৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে যাত্রা শুরু করে এ বছর ৭ম বর্ষপূর্তি ও ৮ম বর্ষে পদার্পণ করেছে। ট্রান্সপোর্ট ইয়ার্ডে দিনব্যাপী জমজমাট অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে ফিচার প্রদর্শনী, কেক কাটা, বর্ষসেরা সাংবাদিক বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার প্রদান, ফানুস উড়ানো ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। সভাপতি মোহাম্মদ রনি খার সভাপতিত্বে অতিথি ছিলেন ঢাকা-২০ আসনের সাংসদ ও ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বেনজির আহমেদ, দৈনিক অধিকারের সম্পাদক তাজবীর হোসাইন সজিব, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মুর্ত্তজা আলী বাবু, গবিসাসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আসিফ আল আজাদ।

ফার্মেসী ক্লাব নাটক

ফার্মেসি বিভাগের উন্নতি ও কল্যাণার্থে ফার্মেসী ক্লাব গঠন করা হয়। সংগঠনটি ২৬ সদস্য নিয়ে ১৭ ফেব্রুয়ারি যাত্রা শুরু করে। তবে গঠনতন্ত্র না মেনে কমিটি গঠন করার অভিযোগ তুলে দুই দিন পরে ১৮ জনই পদত্যাগ করেন। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন রেজিস্ট্রার ক্লাবটি ভেঙ্গে দেয়া এবং নিয়ম মেনে ক্লাব পুনর্গঠনের মৌখিক নির্দেশ দেন। তবে পরবর্তীতে এ নিয়ে আর কোনো অগ্রগতি লক্ষ্য করা যায়নি।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি ও বিনামূল্যে বিতরণ

করোনাকালীন সময়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করেছেন এই বিদ্যাপীঠের শিক্ষার্থীরা। ফার্মেসি বিভাগ নিজ অর্থায়নে স্যানিটাইজার প্রস্তুত করে জনসাধারণকে বিনামূল্যে বিতরণ করে। প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ রোটারি ইন্টারন্যাশনাল অব বাংলাদেশের অর্থায়নে এক’শ মিলির ৫ হাজার স্যানিটাইজার তৈরি করে এবং অসহায় মানুষের মাঝে তা বিতরণ করা হয়।

গবিসাস আলাপন

লকডাউনে শিক্ষার্থীদের অলস সময়কে প্রাণবন্ত করতে ১৫ মে শুরু হয় গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (গবিসাস) আয়োজিত অনলাইন অনুষ্ঠান—গবিসাস আলাপন। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনপ্রিয় সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীরা জানা অজানা গল্প নিয়ে হাজির হতো। নবীনদের জানানো হতো বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা ঘটনা। ঘন্টাব্যাপী এই অনুষ্ঠান দেশের ক্যাম্পাসগুলোতে দারুণ জনপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে গবিসাসের দেখাদেখি ডজনখানেক ক্যাম্পাসে এ আয়োজন শুরু হয়।

ড. বিজনের জি র‍্যাপিড ডট ব্লট

চলতি বছরের মে মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের তৎকালীন চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. বিজন কুমার শীল করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কিট উদ্ভাবন করেন। এর মাধ্যমে মাত্র ৫ মিনিটে জানা যাবে রোগী কোভিড-১৯ পজিটিভ কী না! সারাদেশে বেশ সাড়া ফেলে এই “জি র‍্যাপিড ডট ব্লট” কিট। যদিও নানা জটিলতার কারণে এই কিট সরকারের অনুমোদন পায়নি।

অনলাইনে ক্লাস ও সেমিস্টার ফাইনাল

করোনা সংক্রমণ মহামারি আকার ধারণ করায় ১৭ মার্চ বন্ধ হয় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সেশনজট এড়াতে ও লেখাপড়ার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ৯ এপ্রিল অনলাইন ক্লাস চালুর বিজ্ঞপ্তি দেয় গণ বিশ্ববিদ্যালয়। সংকটময় পরিস্থিতিতে গ্রামের বাড়িতে অবস্থান, নেটওয়ার্ক ধীরগতি, অত্যাধিক মোবাইল ডাটার অর্থ, প্রয়োজনীয় শিক্ষা সামগ্রীর অভাব কাটিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ায় শুরুর দিকে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। অনলাইন ক্লাস পদ্ধতির পক্ষে-বিপক্ষে মতামত জরিপ করে তারা। ধাপে ধাপে ছুটি বর্ধিত হওয়ায় ১ জুলাই প্রথমবার অনলাইন সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষার সম্মুখীন হয় শিক্ষার্থীরা। তবে সব বাধা কাটিয়ে শতভাগ শিক্ষার্থী উপস্থিতিতে পরীক্ষা কার্যক্রম শেষ হয়।

ব্লাইন্ড স্টিক উদ্ভাবন

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের পথ দেখাতে আগস্টে মেডিক্যাল ফিজিক্স এন্ড বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী তন্ময় রায়ের উদ্ভাবন করেন ব্লাইন্ড স্টিক। অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহার হয়েছে এই প্রজেক্টটিতে। তারবিহীন হেডফোনের মাধ্যমে সংকেত, জিপিএস মাধ্যমে অবস্থান নির্ণয় সহ মোট ৫টি ফিচার রয়েছে এতে।

রেজিস্ট্রারের অশ্লীল ফোনালাপ ফাঁস

সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ছাত্রীর সাথে রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেনের ২৬ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের অশ্লীল একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়। এই খবরে ক্যাম্পাস উত্তাল হয়ে ওঠে এবং বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখি হয়। তাকে বহিস্কারের দাবি জানান শিক্ষার্থীরা। পরে ট্রাস্টি বোর্ডের এক সভায় ১২ সেপ্টেম্বর তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

রোবট ‘অ্যাভওয়ার’

কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিজ্ঞান বিভাগের শেষ বর্ষের চার ছাত্রী বিভাগীয় প্রজেক্টের অংশ হিসেবে তৈরি করেন নার্স রোবট ‘অ্যাভওয়ার’। রোবটটি হাঁটা-চলা, কথা বলা ছাড়াও নার্সের পরিবর্তে কাজ করতে পারে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে এটি উদ্ভাবন করেন তারা।

ছাত্র সংসদের ঘর গোছানোর বছর

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদের নির্বাচন হয় ২০১৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি। সংসদের ৩য় কমিটি হলেও শিক্ষার্থীদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত প্রথম সংসদ এটি। তবে নির্বাচনের ১৯ মাস পর হয় তাদের অভিষেক। ৫ ডিসেম্বর বিভিন্ন অভিযোগ তুলে সংসদের সহ-সভাপতি (ভিপি) মো: জুয়েল রানা পদত্যাগ করেন। এর কয়েকদিন পরই নানা নাটকীয়তার অবসান ঘটিয়ে উপদেষ্টা পরিষদের সভার সিদ্ধান্তে সংসদের ৩য় কার্যনির্বাহী পরিষদ ভেঙ্গে দেয়।

গবিসাস ছাড়া সব সংগঠনের কার্যক্রম স্থগিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে সরকারী সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত ৮ ডিসেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সংগঠনের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। তবে ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠন গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (গবিসাস) এর কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গবিয়ানরা মানবপ্রেমী

করোনা মহামারীতে সব থমকে গেলেও গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানবতা অব্যাহত ছিল। অনেকেই নিজস্ব অর্থায়নে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কেউ রান্না করা খাবার, কেউবা গোটা মাসের খাদ্যসামগ্রী, কেউ বৈশাখী উপহার, অনেকে আবার সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে একান্তে। জরুরী মূহুর্তে রক্ত সরবরাহ করেছে শিক্ষার্থীরা। পাঁচ মাস রাস্তার পাশে পরে থাকা এক ভারসাম্যহীন মহিলার আশ্রয়ের ব্যবস্থা করেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্র। হাসপাতালে করোনার উৎসর্গে এক মৃত ব্যক্তিকে ফেলে যায় তার স্বজনেরা৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী তার দাফনের ব্যবস্থা করে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন।

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today