বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

গত ৪ মাসে সড়ক দূর্ঘটনা মৃত্যু ৫৭৭; নদীপথে মৃত্যু শতাধিক

  • আপডেট টাইম বুধবার, ১২ মে, ২০২১, ৩.৩২ পিএম
বগুড়ায় বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল শিক্ষকের

 

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত চার মাসে সড়ক-মহাসড়কে ১০৯৮টি দুর্ঘটনায় ৫৭৭ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে পুরুষ ৪১০ জন, নারী ৮৭ জন এবং শিশু ৮০ জন। সেভ দ্য রোড এর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

আজ সকালে (১২ মে) সেভ দ্য রোডের জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচী পালনকালে এ প্রতিবেদন তুলে ধরেন।

এসময় পথেপথে মৃত্যুমিছিল বন্ধে যথাযথ পদক্ষেপের দাবিতে ৪ মাসের পথদূর্ঘটনার তথ্য প্রতিবেদন পাঠ এবং অবস্থান কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রতিষ্ঠাতা মোমিন মেহেদীর সভাপতিত্বে এতে লিখিত প্রতিবেদন পাঠ করেন মহাসচিব শান্তা ফারজানা। বক্তব্য রাখেন সেভ দ্য রোড-এর ভাইস চেয়ারম্যান বিকাশ রায়, ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আনজুমান আরা শিল্পী, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিদুল মল্লিক, ইভানা শাহীন প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে শান্তা ফারজানা বলেন , স্পষ্ট এটাই যে, বাংলাদেশে সড়ক ও নৌপথে পুলিশ-প্রশাসনের দুর্নীতির কারণে নদীপথে নিষেধ থাকা স্বত্বেও বিভিন্ন অসঙ্গতিপূর্ণ কাজ চলছে অহরহ। ৩ মে’র কথাই যদি বলি, সেদিন নিষেধ থাকা স্বত্বেও নৌপুলিশ-স্থানিয় প্রশাসন ও ঘাট নেতাদের যোগসাজসে দীর্ঘদিন যাবৎ চলে আসা স্পিডবোট চলাচলের ধারাবাহিকতায় মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ঘাটে বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের সংঘর্ষে ২৬ জন নিহত হয়েছে। আহতও হয়েছে অনেকে।

অবশ্য সেই ঘটনার পর যথারীতি জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এই পর্যন্তই শেষ, আর কোন ফলোআপ পাওয়া যাবে না সংশ্লিষ্টদের কাছে। বড়জোর যেই ব্যক্তি এই স্পিডবোটের মালিক তাকে আটক করবে; অথচ তাঁর কাছ থেকেই প্রতিদিন প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা অর্থ নিয়ে এই বাহন চলাচলের ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, শুধু ফিটনেস নেই, অনুমোদন নেই এমন নৌবাহনের কারণে কেবল নারায়ণগঞ্জেই ঘটেছে অসংখ্য নৌ দূর্ঘটনা। এপ্রিলে নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো শিপের ধাক্কায় লঞ্চডুবির ঘটনায় ৩৫ জন নিহত হয়েছিলো। অথচ সেই কার্গোর মালিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আত্মিয় হওয়ার সুযোগ কাজে লাগিয়ে চলে গেছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। এই ঘটনার পরপরই সেই কাগোর রং পরিবর্তন করে দ্রুত তা সরিয়ে নেয়ার সংবাদ আমরা গণমাধ্যমে দেখলেও নেয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ ঘাতক কার্গো বা এর মালিকপক্ষের বিরুদ্ধে।

এ-সময় তিনি লিখিত বক্তব্যে সেভ দ্য রোড-এর ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন।দাবি সমূহ -১. মিরেরসরাই ট্রাজেডিতে নিহতদের স্মরণে ১১ জুলাইকে ‘নিরাপদ পথ দিবস’ ঘোষণা করতে হবে। ২. ফুটপাত দখলমুক্ত করে যাত্রীদের চলাচলের সুবিধা দিতে হবে। ৩. সড়ক পথে ধর্ষণ-হয়রানি রোধে ফিটনেস বিহীন বাহন নিষিদ্ধ এবং কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণ ও জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যতিত চালক-সহযোগি নিয়োগ ও হেলপারদ্বারা পরিবহন চালানো বন্ধে সংশ্লিষ্ট সকলকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।

৪. সড়ক-নৌ-রেল ও আকাশ পথ দূর্ঘটনায় নিহতদের কমপক্ষে ১০ লাখ ও আহতদের ৩ লাখ টাকা ক্ষতি পূরণ সরকারীভাবে দিতে হবে এবং চালক-যাত্রীদের সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে পথনাটক, টিভি- রেডিওতে নাটিকা প্রচারের উদ্যেগ গ্রহণ করতে হবে। ৫. ‘ট্রান্সপোর্ট ওয়ার্কার্স রুল’ বাস্তবায়নের পাশাপাশি সত্যিকারের সম্মৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে ‘ট্রান্সপোর্ট পুলিশ ব্যাটালিয়ন’ বাস্তবায়ন ও পাঠ্যবইয়ে পথচলাচলের সচেতনতামূলক নির্দেশিকা সংযুক্ত করতে হবে।

৬. পথ দূর্ঘটনার তদন্ত ও সাজা ত্বরান্বিত করণের মধ্য দিয়ে সতর্কতা তৈরি করতে হবে এবং ট্রান্সপোর্ট পুলিশ ব্যাটালিয়ন গঠনের পূর্ব পর্যন্ত হাইওয়ে পুলিশ, নৌ পুলিশ সহ সংশ্লিষ্টদের আন্তরিকতা সহমর্মিতা সচেতনতার পাশাপাশি সকল পথের চালক-শ্রমিক ও যাত্রীদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। যদি রাস্তা পারাপারের সময় কোন পথচারি ফোনে কথা বলে, তাকে আইনের আওতায় এনে জরিমানা আদায় করতে হবে।সকল পরিবহন চালকের লাইসেন্স করতে হবে।

৭. ইউলুপ বৃদ্ধি, পথ-সেতু সহ সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়ে দূর্নীতি প্রতিরোধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। যাতে ভাঙা পথ, ভাঙা সেতু আর ভাঙা কালভার্টের কারনে নতুন কোন প্রাণ দিতে না হয় সেই লক্ষ্যে ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’ সংশোধনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করতে হবে।

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today