বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৫৬ অপরাহ্ন

চিকিৎসা নিতে এসে মারধরের শিকার নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১, ৭.৪৯ পিএম
চিকিৎসা নিতে এসে মারধরের শিকার নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

জাককানইবি প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে মেডিকেলের দায়িত্বরত আনসার কতৃক মারধরের শিকার হয়েছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকাল ১০ টা ৩০ এ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটডোর বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে মাসুদ ও শরীফ নামে দুই জন আনসার কতৃক এমন ঘটনার শিকার হন।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য বলেন, আজ সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে চিকিৎসা গ্রহণের উদ্দেশ্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার উদ্দেশ্যে টিকিট কাটার লাইনে দাঁড়াই। এসময় আমার শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকা লাইনের দাঁড়িয়ে সেখানকার দায়িত্বরত আনসারকে বলি আমাকে একটু আগে সিরিয়াল দেওয়া যায় কি না? এর পর আমার আশেপাশের কিছু লোক এই নিয়ে কথা বলছিলেন।

ঐশ্বর্য আরও বলেন, এসময় তাদের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের একজন আমাকে মারতে শুরু করেন। এসময় দায়িত্বরত আনসার এসেও আমাকে মারে। আমার শার্ট ছিঁড়ে দেয়। তারা আমাকে জুতা দিয়ে আমার পিঠে লাথি মারে এবং বন্দুকের পিছনের অংশ দিয়ে সেখানে আঘাত করেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, এ সময় তিনি আমাকে জঙ্গি বলেও সম্বোধন করেন। আমাকে মারার পর আমার চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে তারা তাদের ক্যাম্পে আমাকে প্রায় ২ ঘন্টার মত আটকে রাখে। এসময় আমার নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত পড়ছিল। পরে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর স্যারকে এই বিষয়ে জানাই এবং তিনি এসে তাদের ক্যাম্প থেকে আমাকে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আসাদুজ্জামান নিউটন বলেন, ঘটনাটি সম্বন্ধে অবগত হওয়ার পর আমরা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে আসি এবং সি সি টিভি ফুটেজ দেখে বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হই। এসময় আমার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ও উপ পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে এমন লজ্জিত, অনাকাঙ্ক্ষিত ও বর্বর ঘটনা সমাধানের দাবি জানাই।

বিজ্ঞাপন

এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে চারটি দাবি উত্থাপন করা হয়। দাবিগুলো হচ্ছে-

১. ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী যে চিকিৎসার জন্য এসেছিলেন সেই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, চিকিৎসা নিতে এসে মারধরের ফলে যে ক্ষতি হয়েছে সে বিষয়ে চিকিৎসা প্রদান করা।
২. ঘটনার সাথে জড়িত দুই জন আনসারকে প্রত্যাহার করা করা।
৩. সকল শিক্ষার্থীদের আইডি কার্ড প্রদর্শনের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা গ্রহণের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার প্রদান করা।
৪. শৃঙ্খলা সেবার ব্যবস্থা করা।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার মো: ওয়ায়েজউদ্দীন ফরাজী বলেন, সি সি টিভি ফুটেজ দেখে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে, হাসপাতালের চিকিৎসা নেওয়ার উদ্দেশ্যে টিকিট কাটার যে লাইন রয়েছে সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় উক্ত শিক্ষার্থী কথাকাটাকাটি করছিলেন। এক পর্যায়ে ঐ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা একজনকে থাপ্পর মারেন।
বিষয়টি নিয়ন্ত্রণের জন্য সেখানে দায়িত্বরত আনসার চলে আসে। সি সি টিভি ফুটেজে তাদের মারতে দেখা যায় নি তবে তারা নিজে থেকেই বিষয়টি স্বীকার করেছেন। ইতোমধ্যে ঘটনার সাথে জড়িত দুজন আনসারকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দায়িত্ব থেকে তাদেরকে প্রত্যাহার করেছি।

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today