ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিয়ে পৈশাচিক উল্লাস

ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিয়ে পৈশাচিক উল্লাস

ডেস্ক রিপোর্ট


শুভ শীল (২০) নামে এক ছাত্রলীগ নেতার ডান হাতের কবজি কেটে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা।পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যা। মঙ্গলবার দিনগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে শহরের হাসপাতাল সড়কের ব্রিজসংলগ্ন এলাকায় ওই ছাত্রলীগ নেতা এ নৃশংস হামলার শিকার হন।

তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে গভীর রাতে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে সংকটজনক অবস্থায় বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে সড়কে পড়ে থাকা হতে ওই যুবকের ডান হাতের বিচ্ছিন্ন কবজি উদ্ধার করেছে।

জানা যায়, নৃশংস হামলার শিকার ওই যুবক মঠবাড়িয়া সরকারি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের পরীক্ষার্থী শুভ পৌর শহরের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। সে শহরের দক্ষিণ মিঠাখালী মহল্লার শ্যামল চন্দ্র শীলের ছেলে। একটি মোবাইল নিয়ে পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পৌর শহরের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সরকারি মঠবাড়িয়া কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র শুভ শীল এর সাথে স্থানীয় কতিপয় যুবকের সাথে দীর্ঘদিন একটি মোবাইল নিয়ে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে প্রতিপক্ষ সাদিক, নাঈম, কোরবান ও তানভীর মল্লিকসহ কয়েকজন যুবক শহরের হাসপাতাল রোডের ব্রিজসংলগ্ন এলাকায় শুভকে একা পেয়ে আটক করে। এর পর তারা শুভর ডান হাতের কবজি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বিচ্ছিন্ন করে উল্লাস করতে করতে চলে যায়।

এর পর এলাকাবাসী শুভকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। ওই যুবকের বিচ্ছিন্ন ডান হাতের কবজি সড়কে পড়ে থাকে। পুলিশ ঘটনাস্থল হতে বিচ্ছিন্ন কবজি উদ্ধার করে।

পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহম্মেদ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ সভাপতি ফেরদৌস এঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ছাত্রলীগ নেতা শুভর কবজি কর্তনের ঘটনা নৃশংস ও বেদনাদায়ক। অপরাধীদের দ্রুত বিচারের দাবি জানাই। মঠবাড়িয়া থানার ওসি আ জ ম মাসুদ্দুজ্জামান মিলু জানান, একটি মোবাইল নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে এঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এব্যাপারে আহত কলেজছাত্রের বাবা শ্যামল চন্দ্র শীল বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। দোষীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *