শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০১:১৬ অপরাহ্ন

টাকার অভাবে ভর্তি পরীক্ষায় ১৪তম হয়েও ঢাবিতে ভর্তি অনিশ্চিত লিমনের

  • আপডেট টাইম বুধবার, ২০ জুলাই, ২০২২, ১০.৪৬ এএম

ক্যাম্পাস টুডে ডেস্কঃ নাম লিমন মিয়া । চলতি বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষায় ‘খ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় তাঁর অবস্থান ১৪তম। কিন্তু ভর্তি পরীক্ষায় অবস্থান করার পরেও যেন তাঁর ভর্তি অনিশ্চিত। চা বিক্রেতা বাবার আয়ে কোনোরকমে তিন বেলা খাবার জোটে। হতদরিদ্র পরিবারের নানা কষ্টের মধ্যেও পড়াশোনায় হাল ছাড়েননি লিমন।

লিমনের বাড়ি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ময়েনপুর ইউনিয়নের শুকুরেরহাট শেকুরপাড়া গ্রামে। বাবা গোলাম মন্ডল হাটের এক কোণে শুধু চা বিক্রি করেন। মা লাভলী বেগম গৃহিণী। দুই ভাইবোনের মধ্যে বড় বোনের বিয়ে হয়েছে। এখন একমাত্র ছেলের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন মা–বাবা। টাকার অভাবে লিমনকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করানোর কোনো উপায় খোঁজে পাচ্ছেন না তাঁরা।

বিজ্ঞাপন

আর্থিক দৈন্য দশা তুলে ধরে লিমন বলেন, ‘বাবার সামান্য চা বিক্রি করে আমাদের কোনোরকম খাবার জোটে। বাড়তি কোনো টাকা নেই যে সেই টাকা দিয়ে ভর্তি হব। নেই কোনো জমিজমা। শুধু ৬ শতাংশ জমির ওপর বাসতভিটা। একটি লম্বা টিনের বেড়া দেওয়া ঘরে দুটি কক্ষ। প্রচণ্ড গরমে সেখানে টিকে থাকা কষ্টকর। এরপরও জীবনযুদ্ধে টিকে থাকতে লড়াই সংগ্রাম করে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হয়েছে।’

পড়াশোনার ফাঁকে চায়ের দোকানে বাবাকে সহয়তা করছেন লিমন মিয়া। অর্থ সংকটের কারণে ভর্তি পরীক্ষায় ১৪তম হয়েও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লিমনের ভর্তি হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা পড়াশোনার ফাঁকে চায়ের দোকানে বাবাকে সহয়তা করছেন লিমন মিয়া। অর্থ সংকটের কারণে ভর্তি পরীক্ষায় ১৪তম হয়েও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানীয় শুকুরেরহাট উচ্চবিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে ৪ দশমিক ৯৪ জিপিএ পেয়ে উত্তীর্ণ হন লিমন।

বিজ্ঞাপন

একই এলাকার শুকুরেরহাট ডিগ্রি কলেজে উচ্চমাধ্যমিকে বিভাগ পরিবর্তন করে মানবিক বিভাগে ভর্তি হন তিনি; উত্তীর্ণ হন জিপিএ-৫ পেয়ে। এরপর কোনো কোচিং না করেই নিজের চেষ্টা আর বন্ধুদের সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নেন লিমন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটে মেধাতালিকায় ১৪তম স্থান অর্জন করেন।

চলতি মাসের ২১ তারিখের মধ্যে পছন্দের বিষয়ের তালিকা জমা দিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে। লিমন জানালেন, তাঁর অবস্থান উপরের দিকে থাকায় সব বিষয়ই নেওয়ার সুযোগ পাবেন। তিনি বলেন, ‘বিষয় পছন্দের তালিকায় এক নম্বরে দেব। দুই নম্বরে পছন্দের বিষয় ইংরেজি। বিষয় পছন্দের প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরই ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে। তখন টাকার দরকার হবে।’

বিজ্ঞাপন

লিমনের বাবা গোলাম মন্ডল ছেলের জন্য সহযোগিতা কামনা করে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার ছেলেটা কত কষ্ট করে পড়াশোনা করেছে। এখন তার ভর্তির জন্য যে টাকা লাগবে, সেই টাকাও সংগ্রহ করতে পারছি না। ছেলেকে ভর্তি করানোর জন্য ধারদেনাও কারও কাছে পাওয়া যাচ্ছে না। সবার ধারণা ধারের এই টাকা তো শোধ দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব নয়।’ সূত্রঃ প্রথম আলো।

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today