বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন

ঢাবিতে বাসি-পচা খাবার দেওয়ায় ক্যান্টিনে তালা

  • আপডেট টাইম শনিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২২, ৩.৪৯ পিএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি জসীম উদ্দীন হলের ক্যান্টিনে পচা খাবার দেওয়ার ‌অভিযোগে তালা দিয়েছেন হলটির বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, শুক্রবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে খাবার খেতে এসে ‘নষ্ট ভাতে পোকা পান’ শিক্ষার্থীরা। পরে ক্যান্টিনের রান্নাঘর থেকে আরও পঁচা খাবার উদ্ধার করে হলের বাগানে নিয়ে আসা হয়। এসময় শিক্ষার্থীদের সাথে ক্যান্টিনের ম্যানেজার মোবারক হোসেনের বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে তাকে মারতে উদ্যত হলে সিনিয়র শিক্ষার্থীরা তাদের থামায়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ক্যান্টিনের সব খাবারই পচা এবং দুর্গন্ধযুক্ত। ভাতের নামে খাওয়ানো হচ্ছে চালের গুঁড়া। এ ছাড়া সবধরনের মাছ-মাংস ও তরি-তরকারি বাসি ও পচা। এসময় তারা ম্যানেজার মোবারককে অপসারণ এবং ক্যান্টিন পরিষ্কার ও মানসম্মত করার আগ পর্যন্ত তালাবদ্ধ রাখার হুঁশিয়ারি দেন।

এসময় শিক্ষার্থীরা রান্না করা ভাত খোলা পাশেই রাখা আছে বাসন ধোয়া হচ্ছে বলেও দেখান। তারা বলেন, এই পানি সহজেই ভাতে গিয়ে পড়ছে। এছাড়াও ভাতের পোকাও দেখান তারা। রান্না করা মুরগির মাংসে পালকও পাওয়া যায়। এছাড়াও ফ্রিজের ভেতরের বেশিরভাগ খাবারই পচা এবং নষ্ট।

শিক্ষার্থীদের জেরার মুখে ক্যান্টিন ম্যানেজার মোবারক পচা চালের বস্তা দোকানদার ভুল করে দিয়ে গেছে দাবি করেন। এছাড়াও পঁচা মাংসের প্যাকেটের বিষয়ে বলেন, ‘এটি কোনও শিক্ষার্থী ক্যান্টিনের ফ্রিজে রেখে গেছে।’

ঘটনার এক পর্যায়ে কবি জসীম উদ্দীন হলের প্রাধ্যক্ষ ড. মুহাম্মদ আব্দুর রশীদ, হাউজ টিউটর ড. মো. জহিরুল ইসলাম, হল ছাত্রলীগের সভাপতি ওয়ালিউল সুমন ও সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান এসে শিক্ষার্থীদের যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে শান্ত করেন।

হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুর রশীদ নষ্ট খাবার দেখেন এবং রান্না করা পালকযুক্ত মুরগী ক্যান্টিন ম্যানেজারকে খেতে বলেন। তিনি বলেন, ‘এসব খাবার শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের জন্য হুমকিস্বরূপ। অপরাধীকে অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনা হবে।’ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ক্যান্টিন বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি।

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today