নাসিমকে নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস: গ্রেফতার, বহিষ্কার ও মামলা

নাসিমকে নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস: গ্রেফতার, বহিষ্কার ও মামলা

ডেস্ক রিপোর্ট: সদ্য প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে ফেসবুকে ‘অবমাননাকর স্ট্যাটাস’ দিয়ে গ্রেফতার, বহিষ্কার ও মামলার শিকার হয়েছেন অনেকে। এদের মধ্যে একজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকাও আছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিকা গ্রেফতার

প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় অভিযোগে করা মামলায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা একটি মামলায় তাকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছে পুলিশ।

জানা গেছে, অভিযুক্ত শিক্ষক সিরাজাম মুনিরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রভাষক। ছাত্রজীবনে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের সহ সভাপতি ছিলেন।

এছাড়া, ওই শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শোকজ নোটিশ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নিয়োগ কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন খোদ সহকর্মীরাই। অনতিবিলম্বে তাকে স্থায়ী বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন শিক্ষক ও ছাত্রসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

ইবিতে ছাত্র ইউনিয়ন সম্পাদক সাময়িক বহিষ্কার

নাসিমকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীর নাম সাদিকুল ইসলাম। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। ইবি শাখা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক তিনি।

সোমবার (১৫ জুন) ইবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে সাদিকুলকে সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়ে জানানো হয়।

এছাড়া আগামী সাতদিনের মধ্যে কেন তাকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না, সেটি জানতে চেয়ে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন

এদিকে নাসিমকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (১৫ জুন) দুপুরে জালালাবাদ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেন।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মাহির চৌধুরী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষে অধ্যয়নরত। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গেও যুক্ত।

প্রসঙ্গত, গত ১ জুন নিউমোনিয়াজনিত সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন মোহাম্মদ নাসিম। চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা হলে ফলাফল পজিটিভ আসে। পরে তিনটি করোনা টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। হাসপাতালে গত ৫ জুন শুক্রবার ভোরে তার স্ট্রোক হয়। একইদিনে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নিউরো সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. রাজিউল হকের নেতৃত্বে অস্ত্রোপচার হয়।

এর আগেও নাসিমের একবার স্ট্রোক হয়েছিল।সবশেষে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (১৩ জুন) সকালে মোহাম্মদ নাসিম মারা যান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *