রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৩:২৮ পূর্বাহ্ন

পাবিপ্রবিতে উপাচার্য নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

  • আপডেট টাইম সোমবার, ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৩.২৯ পিএম
পাবিপ্রবিতে উপাচার্য নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

পাবিপ্রবি প্রতিনিধি: পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) উপাচার্য নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। সোমবার (১১ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষকরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথমবর্ষের ক্লাস শুরু অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

উক্ত মানববন্ধনে শিক্ষকদের বক্তব্যে অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব এনামুল হক বলেন,’পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে সংকটের মধ্যে দিয়ে দিন অতিবাহিত করছে। রমজান মাস চলছে। আমাদের হাতে টাকা নেই। আমরা চলতে পারছি না। যতদিন পর্যন্ত আমরা একজন যোগ্য ভিসি পাচ্ছি, ততদিন আমাদের এই সংকট কাটবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন প্রশাসক ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান বলেন,”গত ৬ মার্চ এর পর থেকে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদটি শূন্য হওয়ায় আমরা অভিভাবকশূন্য হয়ে পড়েছি।আমাদের শিক্ষার্থীরা তাদের ফাইনাল ইয়ারের রেজাল্ট পাচ্ছে না।এবারের ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু অনিশ্চিত।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষক-কর্মকর্তারা বেতন-ভাতা পাচ্ছি না। সব মিলিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অস্থিতিশীল ও অনিশ্চিত পরিস্থিতিতে বিরাজমান করছে। আমরা কতৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করছি, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন সৎ, যোগ্য, মেধাবী উপাচার্য নিয়োগ দিতে; যিনি স্বার্বক্ষণিক ক্যাম্পাসে অবস্থান করবেন এবং এহেন পরিস্থিতিতে বিরাজমান সংকট নিরসন করা সহ আগামীদিনে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার উপযুক্ত পরিবেশ বাস্তবায়ন করবেন।

এছাড়াও উক্ত মানববন্ধনে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে অংশ নিয়ে সকলেই দ্রুত উপাচার্য নিয়োগের দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, প্রায় ১ মাস ধরে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পাবিপ্রবি) চলছে উপাচার্য ছাড়াই। গেল মার্চের ৬ তারিখে মেয়াদ শেষ হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম রোস্তম আলীর। এদিকে এদিকে সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলামের মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর এবং ২০২১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ার খসরু পারভেজ এর মেয়াদ শেষ হলেও উক্ত পদদ্বয়ও বর্তমানে শূন্য অবস্থায় রয়েছে।উল্লেখিত প্রধান পদ তিনটি ফাঁকা থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা প্রশাসনিক ও আর্থিক স্থবিরতার সম্মুখীন।

উপাচার্য না থাকায় ইতোমধ্যে শিক্ষার্থীদের সেশনজটের বড় আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে।কোনো সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্ট দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না, নবীন শিক্ষার্থীদের ক্লাশ শুরু নিয়ে অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-বোনাস আটকে গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহণ পুলের অন্তর্ভুক্ত শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য ব্যবহৃত মাইক্রোবাস, মিনিবাস ও বাসের মেরামত ও জ্বালানি খরচের যোগানদাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ দপ্তর স্থবির হয়ে যাওয়ায় পরিবহন পুল সংকটাপন্ন ও পরিবহণ সেবা বন্ধের উপক্রম হয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today