বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

বিদুৎ সাশ্রয়ে অনলাইন ক্লাসের পরিকল্পনা, বিপক্ষে শিক্ষার্থীরা

  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ২৯ জুলাই, ২০২২, ২.৩৯ পিএম
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

জবি প্রতিনিধি: বিদুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় করার জন্য সপ্তাহের যেকোন একদিন অনলাইন ক্লাস নেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রশাসন। কিন্তু এমন সিদ্ধান্তের বিপক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তাঁরা মনে করছেন সাশ্রয় করার জন্য সশরীরে ক্লাস বন্ধ করে দেওয়াই সমাধান নয়।

গতকাল গণমাধ্যমে একদিন অনলাইন ক্লাস নেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে জবি প্রশাসন এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সহ বিভিন্ন জায়গায় ক্ষোভ প্রকাশ করে।

বিজ্ঞাপন

অনলাইন ক্লাসের বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শিক্ষার্থীরা বলেন ক্যাম্পাসে নাহয় বিদ্যুৎ সাশ্রয় হলো কিন্তু অনলাইন ক্লাস চলার সময় প্রত্যেক শিক্ষার্থী যখন বাসায় লাইট, ফ্যান, ল্যাপটপ আনুষাঙ্গিক জিনিস ব্যবহার করবে তখন আর সাশ্রয় কিভাবে হবে। তাছাড়া শিক্ষার্থীরা অনলাইন ক্লাসেরও প্রতিবন্ধকতা গুলো তুলে ধরে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী প্লাবন খালিদ বলেন, করোনা পরবর্তী শিক্ষাব্যবস্থার উপর যে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে তা আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে। তাছাড়া সব শিক্ষার্থী বাসায় তাদের রুমে ফ্যান-লাইট জ্বালিয়ে, ল্যাপটপ কিংবা ফোন চার্জে লাগিয়ে বিদ্যুতের ব্যবহার কমাবে কি করে?

বিজ্ঞাপন

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কেটিং বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ক্লাস অনলাইনে না নিয়ে বিদুৎ সাশ্রয়ী করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একটা নীতিমালা প্রনয়ণ করতে পারে যেন বিদ্যুৎ এর অপচয় না করা হয়। আর অফিস-বিভাগগুলো ওই নিয়ম অনুযায়ী চলবে।

মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক কাজী সাইফুদ্দিন দৈনিক সকালের সময়কে এ বিষয়ে বলেন, একদিন অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার বিষয়টি পুরোপুরি যুক্তিসঙ্গত নয়। উপাচার্য স্যার সব বিভাগের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়ে দিলে বিদ্যুৎ সাশ্রয় সম্ভব হবে। তাছাড়া একটি মনিটরিং টিম গঠন করা যেতে পারে।

বিজ্ঞাপন

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, এ বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে এখন যেহেতু জ্বালানি, বিদুৎ সাশ্রয় করতে বলা হয়েছে এমন সিদ্ধান্ত আসতে পারে। সামনের কাউন্সিলে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আমরা চিন্তাভাবনা করছি সপ্তাহে যদি একদিনও অনলাইনে ক্লাস হয় তাহলে গাড়ি বন্ধ থাকবে তখন জ্বালানি সাশ্রয় হবে। আর বিদ্যুৎ সাশ্রয়ও হবে। একদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের যানবাহন বন্ধ থাকলে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ জ্বালানি সাশ্রয় হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today