শিক্ষকদের দেখে নেওয়ার হুমকি, নিন্দা জানিয়েছে বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি

শিক্ষকদের দেখে নেওয়ার হুমকি, নিন্দা জানিয়েছে বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার চুরির ঘটনায় উদ্ভুত পরিস্থিতি তৈরি নিয়ে এক বিবৃতি দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষক মোঃ আব্দুল কুদ্দুস মিয়া, ডিন,আইন অনুষদ, প্রফেসর ড. আব্দুর রহিম খান, ডিন, বিজ্ঞান অনুষদ,এবং ড.মোঃ রাজিউর রহমান, সহকারী অধ্যাপক, আইন বিভাগকে জনাব নজরুল ইসলাম(সহকারী রেজিস্ট্রার ) কর্তৃক ভয়ভীতি প্রদর্শন ও দেখে নেওয়ার হুমকির ঘটনায় শিক্ষক সমিতি তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।

রবিবার (৩০ আগস্ট) শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড.হাসিবুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক মোঃ রাকিবুল ইসলাম সাক্ষরিত এই বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় হলো একটি সার্বজনীন প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা হলো এর প্রাণ। শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সমন্বয়ে বিশ্ববিদ্যালয় একটি নিবিড় জ্ঞানচর্চার প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়।এখানে কর্মকর্তা ও কর্মচারী শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সহায়ক শক্তি,কোনোভাবেই পরিপূরক বা প্রতিপক্ষ নয়।

সম্প্রতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের অমর একুশে ফেব্রুয়ারি লাইব্রেরী ভবন থেকে ৪৯ টি কম্পিউটার চুরি এবং উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে ঘটে যাওয়া সমস্ত অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা শিক্ষক সমিতি গভীর উদ্বেগের সাথে পর্যবেক্ষণ করে আসছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তদন্ত কমিটি গঠন করেছে, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীও অত্যন্ত তড়িৎ গতিতে এ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট ৭ জন অপরাধীকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।

তদন্ত কমিটি থেকে একজনকে অব্যাহতি, পদত্যাগ, রদবদল, একজন অব্যাহতি প্রাপ্ত সদস্যর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ভাইরাল হওয়া বক্তব্য রেজিস্ট্রার অফিসে দাখিল হওয়া নথিপত্র এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভাইরাল হওয়া প্রতিক্রিয়া, প্রতিবাদলিপি আমাদের নজরে এসেছে এবং অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার শুরু হতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে শিক্ষক সমিতি অতি নিবিড়ভাবে যোগাযোগ রক্ষা করে আসছে।

আমরা শিক্ষার্থীদের সাধুবাদ জানাই তারা অত্যন্ত সচেতনভাবে এই ঘটনা নিরপেক্ষ তদন্ত এবং সমাধান আশা করছে। যেকোন গঠনমূলক বক্তব্য, প্রতিবাদলিপি, কর্মসূচি শিক্ষক সমিতি সাধুবাদ জানায়। আরো উল্লেখ্য যে, তদন্ত কমিটিকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষকগনের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার জনাব নজরুল ইসলামের বাক বিরোধিতা এবং উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরবর্তীতে বিভিন্ন ঘটনা আমরা শুরু থেকেই পর্যবেক্ষণ করে আসছি।

আরও বলা হয়,শিক্ষক সমিতি মনে করে ব্যক্তির দায় ব্যক্তিকেই নিতে হবে।এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষক মোঃ আব্দুল কুদ্দুস মিয়া, ডিন,আইন অনুষদ,প্রফেসর ড. আব্দুর রহিম খান, ডিন, বিজ্ঞান অনুষদ,এবং ড.মোঃ রাজিউর রহমান, সহকারী অধ্যাপক, আইন বিভাগকে জনাব নজরুল ইসলাম কর্তৃক ভয়ভীতি প্রদর্শন ও দেখে নেওয়ার হুমকির প্রেক্ষিতে গত ২৭/০৮/২০২০ ইং তারিখে তাদের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের ২৯/০৮/২০২০ ইং তারিখের সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে সে জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে প্রকৃত কারণ উদঘাটন করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে শিক্ষক সমিতি অনুরোধ জানাচ্ছে।

শেষে বলা হয়, বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি সর্বদা সকল শিক্ষকদের অধিকার আদায়ে এবং মর্যাদা রক্ষার্থে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সামগ্রিক পরিস্থিতি উন্নতি এবং এই অচলায়তন ভাঙতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নিজ নিজ পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য আহ্বান জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *