বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন

সাতক্ষীরায় ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা

  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯.১৯ পিএম
সাতক্ষীরায় ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা
প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরা টুডে ঃ সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলায় ১০ম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীর রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার টিকেট গ্রামের তারক মন্ডলের সবজি বাগান থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত স্কুল ছাত্রীর নাম পূর্ণিমা দাস (১৬)। সে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার টিকেট গ্রামের শান্তি রঞ্জন দাসের মেয়ে ও গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী।

বিজ্ঞাপন

নিহতের বাবা শান্তিরঞ্জন দাস জানান, পূর্ণিমা দাস(১৬) গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ও অসীমা দাস(১৪) একই বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী। বাড়ি থেকে বাইসাইকেলে তারা বিদ্যালয়ে যাতায়াত করতো। দুই বোন একই গ্রামের দেবদাস ঢালীর কাছে প্রতিদিন সন্ধ্যায় প্রাইভেট পড়তে যেতো। রাত ৯টায় বাড়ি ফিরে আসতো।

নিহতের বোন অসীমা দাস জানায়, বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় পূর্ণিমা ও সে একসাথে প্রাইভেট পড়তে বের হয়। নদী পার হওয়ার পর সে দিদিকে আর দেখতে পায়নি। দেবদাস স্যারের কাছে বিষয়টি বলে সে বাড়িতে ফিরে আসে। রাত ৯টার দিকে বাবা ও স্থানীয়রা দিদিকে খুঁজতে বের হয়। সম্ভাব্য সকল স্থনে চেষ্টা করওে রাতে তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার সকালে একই গ্রামের তারক মণ্ডলের নির্মিত নতুন বাড়ির পাশে পুকুর পাড়ে তাকে বিবস্ত্র ও দু’ হাত বাঁধা অবস্থায় দেখতে পেয়ে এক নারী বাড়িতে খবর দেয়।

অসীমা দাস আরো জানায়, পার্শ্ববর্তী এলাকার শিবু মন্ডল-এর ছেলে পার্থ মন্ডল দীর্ঘদিন ধরে তার দিদিকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করে আসছিলো। বখাটে পার্থ মন্ডল তাঁর দিদিকে ফোন করে দেখা করার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন। বখাটে পার্থ মন্ডল-এর সংগে তার অন্য সহযোগীরা জড়িত থাকতে পারে বলেও তাঁরা ধারণা করছেন।

বিজ্ঞাপন

গিনেস বুকে নাম লেখালেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মনিরুল

দেবহাটা থানার পুলিশ পরিদর্শক ফরিদ হোসেন জানান, পূর্ণিমার দুই হাত বাঁধা ছিল। গলায় ওড়না পেচানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে তাকে মোবাইল ফোনে ডেকে এনে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের বিষয়ে ফরিদ হোসেন বলেন,পূর্ণিমার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে পাওয়া একটি ম্যাসেজ ও মোবাইল কললিষ্ট যাঁচাই করে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today
Exit mobile version