হঠাৎ বছর কুড়ি পর

হঠাৎ বছর কুড়ি পর

বরাবরের মতোই নির্বোধ আমি কিছুটা কাব্যপ্রেমী । তাই ক্ষানিক সময় পেলেই যেতাম চলে, কোনো এক নির্জন সোডিয়াম তলে । সেথা চুপটি করে বসে মঝেমধ্যে ভাবতাম,আবার মাঝেমধ্যে লিখতাম । যা ভাবতাম তাই আবার আধো আলোয় মন অগোচড়ে আঁকতাম । কিন্তু কেন জানি আমার নিরামিষ আঁকিঝুঁকির প্রতিলিপি নিত্যনৈমিতিক দিনকার মতোই ঠিক একই হত,মনের বিরুদ্ধে ছেদ ধরাতাম যত ।

তারপর আর কি কিছুকাল থাকতাম নিশ্চুপ,শেষে বেখেয়ালি অভিমানীনি তোমায় মনে পড়ত খুব ।
এভাবেই চলতে থাকে আমার অশাড় দিন,হয়ে তোমাতে বিলীণ
তবে তুমিহীন।
না জানি সোডিয়াম আলোয় ঘুমিয়েছি কত,খুঁজে খুঁজে কাউকে ঠিক তোমার মত।

জানো আজও মিটে নি নিঃশেষ আমার,
তোমার মত কারো দেখা পাওয়য়ার আকাঙ্ক্ষা ,তাইতো আমি এই অচল সময়ের খন্ডক নাম দিয়েছি ‘অসত্য অপেক্ষা’।

এমনি নিরস একদিন মাঝ রাস্তায় অচেতনে হাঁটছিলাম,আকস্মিক কার হাতের স্পর্শে জানি মৃতপ্রায় জীবন আবার নতুন করে ফিরে পেলাম।
মিটিমিটি চোখে দেখি তাকিয়ে ,
এ ত সে, মৃতপ্রায় আজ আমি যার নামহীন বিষাক্ত বিষে।

আরও পড়ুন

হাওরের ছেলে-মেয়েরা ঘরে বসেই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে ডলার আয় করছে

ফেলে রেখে জীবনের ছেদ,উৎকন্ঠা করে ভেদ করলাম একটাই প্রশ্ন,”হঠাৎ বছর কুড়ি পর…??”

আবুবকর সিদ্দিক শিবলী
শিক্ষার্থী,
১ম বর্ষ
‘কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ’
বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জামালপুর

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *