শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ অপরাহ্ন

হাবিপ্রবি শিল্প ও সাহিত্য সমিতির উদ্যোগে কবিতা আবৃতি প্রতিযোগিতা

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট, ২০২১, ৮.৩৯ পিএম

মোঃ রুবাইয়াদ ইসলাম, হাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) প্রথমবারের মতো হাবিপ্রবি শিল্প ও সাহিত্য সমিতি বা HSTU Art and Literature Association এর পক্ষ থেকে কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা- ২০২১ অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং ১ আগষ্ট, ২০২১ ইং তারিখে প্রতিযোগিতাটির ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

উক্ত প্রতিযোগিতাটি অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় এবং মোট ৯৪ জন প্রতিযোগীর মধ্য থেকে সেরা দশ জনকে নির্ধারণ করা হয়। প্রতিযোগিতাটিতে বিচারক হিসেবে ছিলেন সংগঠনটির উপদেষ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফসল, শারীরতত্ত্ব ও পরিবেশ বিভাগ সহকারী অধ্যাপক ড. মো. রবিউল ইসলাম, ফসল, শারীরতত্ত্ব ও পরিবেশ বিভাগের প্রভাষক সুব্রত কুমার প্রামানিক, সংগঠনটির সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক জাহিদ শাহ সহ আব্দুল্লাহ আল নোমান, দেবাশীষ কুমার কবিরাজ, নাফিস মাহদি বসুনিয়া, সঞ্জিত শর্মা এবং রাবেয়া খাতুন রুবি। এছাড়াও বিশেষ পরিদর্শনে ছিলেন সংগঠনের বর্তমান সভাপতি হাবিবুর রহমান মুন্না ও সাধারণ সম্পাদক অনুকূল প্রসাদ।

বিজ্ঞাপন

কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় সেরা আবৃত্তিকারগণ হলোঃ প্রথম স্থান অধিকারী- ফাতেমা জান্নাত রিন্তি ও তার সঙ্গি [ ডুয়েট ], নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; দ্বিতীয় স্থান অধিকারী- ডচেংনু চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়; তৃতীয় স্থান অধিকারী- সিথি সাহা, নওগাঁ সরকারি কলেজ; চতুর্থ স্থান অধিকারী- মদিনা আক্তার মিম, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; পঞ্চম স্থান অধিকারী- মাহমুদুল হাসান লোমান, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; ষষ্ঠ স্থান অধিকারী- চন্দনা রানী রায়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; সপ্তম স্থান অধিকারী- পবিত্র মোহন্ত, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; অষ্টম স্থান অধিকারী- রাফি ইসলাম, আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ; নবম স্থান অধিকারী- শাহিদা আরবি, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়; দশম স্থান অধিকারী- সুব্রত কুমার দাস, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এ প্রসঙ্গে সংগঠনটির উপদেষ্টা ড. মো. রবিউল ইসলাম বলেন, “তরুণরা জাতির ভবিষ্যৎ কারিগর। অথচ, এরাই আমাদের সমাজের সবচেয়ে বিপদ্গামী। আমরাই তাদের বিপদের মুখে ঠেলে দেই । মুক্ত বাতাসে মুক্ত কথা বলার অভ্যাস হারিয়ে ফেলছে। চতুর্দিকে একটা থমথমে গুমোট পরিবেশ।

বিজ্ঞাপন

আশার কথা হল এরকম একটা রুষ্ট পরিবেশ থেকেই জন্ম নিচ্ছে কিছু কলম, কিছু কবি, কিছু আবৃত্তিকার। যাদের নিংড়ানো ভাষাই হল মুক্তির। মুক্তির সে পথে যোগ হয়েছে কতোক কণ্ঠ; যারা একাত্তরের প্রতিবাদি কণ্ঠের মতোই এ সমাজ বদলের গান গায়। সে গান কে জনসম্মুখে উন্মোচন করার মতো গুরু দায়িত্ব নিয়ে হাবিপ্রবি শিল্প ও সাহিত্য সংগঠন নিঃসন্দেহে জাতির তরুন সমাজকে বিপদমুক্ত করার হাত থেকে বাঁচিয়ে তোলার যে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। এ অগ্রযাত্রায় আমার মতো নগণ্য কবি ও গবেষক নিজেকে সম্পৃক্ত রাখতে পারায় আমি গর্বিত। সেই সাথে বিজয়ীদের অভিনন্দন, সকল অংশগ্রহণকারীদের শুভেচ্ছা ও HSTUALA এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।”

এছাড়াও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকারী ফাতেমা জান্নাত রিন্তির কাছে অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমার কাছে কবিতা একটা ভালোবাসা আর প্রিয় শখ। সেই ভালোবাসার জায়গা থেকেই আবৃত্তি করা। HSTU Art and Literature Association কর্তৃক আয়োজিত এই আয়োজনে অংশ নেয়াটাও সেই হিসেবেই। সেখানে প্রথম হয়ে যাওয়াটা সত্যিই অনেক অপ্রত্যাশিত এবং আনন্দের ব্যাপার।”

বিজ্ঞাপন

তিনি আরো বলেন, “কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি শব্দঘর এবং মাহমুদুল ভাই এর প্রতি। উনি ছাড়া কবিতাটা সম্পূর্ণতা পেত না। তাছাড়াও সকল শ্রোতা এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি আমি অনেক কৃতজ্ঞ। মানুষ কবিতা ভালোবাসছে,আবৃত্তি শুনছে এটা অনেক বড় পাওয়া। এবং সবশেষে HSTU Art and Literature Association এর প্রতি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি কবিতা নিয়ে এত সুন্দর একটি আয়োজন করার জন্য,মানুষের মাঝে কবিতাটাকে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য।”

অনলাইনে উক্ত প্রতিযোগিতা আয়োজনের ব্যাপারে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অনুকূল প্রসাদ বলেন, “শিল্প-সাহিত্য চর্চা মানুষের আদিম প্রবৃত্তি। আদিম এই বৃত্তিগুলি যেন জীবন মোহনায় হারিয়ে যায়। জীবন যেন মোহনার পাকে পাক না খায় HSTUAlA সেই প্রচেষ্টাই করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠাকাল থেকে। করোনা দুর্যোগে বিপর্যস্ত জীবনে ঘরে থাকা দায়।সেই ঘরে থেকেই একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস ফিরিয়ে আনতে HSTUALA আয়োজন করে অনলাইন কবিতা আবৃতি প্রতিযোগীতা-২০২১।”
তিনি আরো জানান, “সারা দেশ থেকে অসংখ্য প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে শিল্পানুরাগীদের মিলনমেলায় পরিণত হয় HSTUALA অনলাইন মঞ্চ। কোন মঞ্চায়নই সফল হয় না,যদি না দর্শকের উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যায়।

বিজ্ঞাপন

স্কুল,কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের সকলের ব্যাপক পরিমাণ সাড়া আমাদের আপ্লুত করেছে। প্রতিযোগিতা চলাকালীন HSTUALA এর অফিশিয়াল পেজ ও গ্রুপ প্রতিযোগী ও শ্রোতাদের পদচারণায় মুখরিত ছিল। সংগঠনের সম্মানীত উপদেষ্টামণ্ডলী, প্রতিষ্ঠাবর্গ ও সদস্যদের সকলের অপার সহযোগিতায় এ আয়োজন আমরা সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারি। পরবর্তীতেও এরকম শিল্প-সাহিত্য বিকাশে HSTU Art and literature Association(হাবিপ্রবিশিসাস) সকলের সার্বিক সহযোগিতায় আরও চমকপ্রদভাবে ভূমিকা রাখবে।”

উল্লেখ্য, প্রতিযোগিতাটিতে নীতি অনুযায়ী ১ম স্থান থেকে ৩য় স্থান পর্যন্ত প্রধান পুরস্কার প্রদান করা হবে এবং বাকি ৭ জনকে শুভেচ্ছা পুরস্কার দেয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
Advertisements

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today