সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন

১০ বছরে পা রাখল বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

  • আপডেট টাইম রবিবার, ১৪ মার্চ, ২০২১, ২.৫৮ পিএম

মোঃ তারেক হাসান: শিক্ষা নগরী রাজশাহীতে প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ২০১২ সালের আজকের এই দিনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদন লাভ করে। এবং একই বছরে ২৪ সেপ্টেম্বর তারিখে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে।

আজ ১০ম বছরে পা রাখলো বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রম আর তীক্ষ্ণ চিন্তা চেতনার মাধ্যমে গড়ে উঠা বিশ্ববিদ্যালয়টি সময়ের সাথে সাথে ছড়িয়ে পড়ছে সবার মাঝে, উত্তরবঙ্গে উচ্চ শিক্ষা নিশ্চিত করতে যারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার এক মহৎ স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং এটি প্রতিষ্ঠার পেছনে অনবদ্য ভূমিকা রেখেছিলেন।

তাঁরা হলেন- বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টের মাননীয় চেয়ারম্যান জনাব হাফিজুর রহমান খান, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপদেষ্টা প্রফেসর এম. সাইদুর রহমান খান, বোর্ড অব ট্রাস্টের সম্মানিত সেক্রেটারি জনাব এ কে এম কামরুজ্জামান খান, জনাব খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মাননীয় সাংসদ, দিনাজপুর-২ ও সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, জনাব সাইফুজ্জামান শিখর, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী, জনাব লিয়াকত শিকদার, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহসম্পাদক, প্রফেসর কামরুজ্জামান।

এছাড়া প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে সহযোগিতায় ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. ওসমান গনি তালুকদার, জনাব সিরাজুর রহমান লিটন এবং বর্তমান এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর জনাব শামীম আহসান পারভেজ।

বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৩টি ফ্যাকাল্টির অধীনে ১০ টি বিভাগে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত রয়েছে। স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নিয়ে বের হয়ে গেছেন প্রায় ছয় থেকে সাত হাজার শিক্ষার্থী। তাদের অনেকেই এখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নিজের মেধা ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন।

রাজশাহীর খড়খড়ি বাইপাস এলাকায় নিজস্বভাবে জমি ক্রয় করে প্রায় ৩৮.৫ বিঘা জমির উপর স্থায়ী ক্যাম্পাসের কাজ চলছে।
২০১৭ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের তিন স্তরের প্রথম স্তরের নির্মাণ কাজ খুব দ্রুতই শেষ হবে। ২০২২ সালে সালের প্রারম্ভেই রাজশাহীর খড়খড়িতে অবস্থিত বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণ বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রাকে সন্দেহাতীত ভাবে আরও ত্বরান্বিত করবে বলে আশাকরা যায়।

যে সকল যোগ্য ব্যক্তিদের দ্বারা বিশ্ববিদ্যালয়টি পরিচালিত হচ্ছে তাতে বলাই যাই, উত্তরবঙ্গ ছাড়াও অচিরেই এটি দেশে ও বিদেশে একটি আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today