সমাস নবম শ্রেণি – বাংলা ২য় পত্র

সমাস নবম শ্রেণি - বাংলা ২য় পত্র

সমাস ক. দ্বন্দ্ব সমাসের খ. কর্মধারয় সমাসের গ. তৎপুরুষ সমাসের ঘ. বহুব্রীহি সমাসের ১১. দ্বিগু সমাসকে কোন সমাসের অন্তর্ভুক্ত বলে মন্তব্য করা হয়? ক. দ্বন্দ্ব সমাসের খ. কর্মধারয় সমাসের গ. তৎপুরুষ সমাসের ঘ. বহুব্রীহি সমাসের ১২. দ্বিগু সমাসকে অনেক ব্যাকরণবিদ কোন সমাসের অন্তর্ভুক্ত করেছেন? ক. তৎপুরুষ খ. দ্বন্দ্ব গ. কর্মধারয় ঘ. অব্যয়ীভাব ১৩. প্রতিটি পদের অর্থ প্রাধান্য পায় কোন সমাসে? ক. নিত্য সমাস খ. দ্বন্দ্ব সমাস গ. বহুব্রীহি সমাস ঘ. তৎপুরুষ সমাস ১৪. ‘জমা-খরচ’ সমস্তপদটির সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি? ক. জমা খরচ খ. জমাকে খরচ গ. জমা হতে খরচ ঘ. জমা…

Read More

বাংলা ২য় পত্র – পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তুতি

বাংলা ২য় পত্রের ব্যাকরণ অংশের অন্তর্গত ধ্বনিতত্ত্ব, ধ্বনির পরিবর্তন ও সন্ধি থেকে আজ নির্বাচিত কিছু প্রশ্ন দেওয়া হলো। আমরা ধারাবাহিকভাবে এ আলোচনা ও অনুশীলনী প্রকাশ করব। ১. বাংলা বর্ণমালায় মাত্রাহীন বর্ণ কয়টি? A. ৮টি B. ১০টি C. ৯টি D. ১১টি ২. কোনগুলো বর্গীয় বর্ণ নয়? A. চ, ছ, জ,ঝ,ঞ B. ত, থ, দ, ধ, ন C. ট, ঠ, ড, ঢ, ণ D. য, র, ল, শ, ষ ৩. বাক্যতত্ত্বের অপর নাম কী? A. শব্দক্রম B. ধ্বনিক্রম C. পদক্রম D. অর্থক্রম ৪. বাংলা ভাষায় মৌলিক স্বরধ্বনি কয়টি? A. ৭টি B. ৮টি…

Read More

বাংলা ২য় – পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তুতি

বাংলা ২য় পত্রের ব্যাকরণ অংশের অন্তর্গত উচ্চারণ ও বানান থেকে আজ নির্বাচিত কিছু প্রশ্ন দেওয়া হলো। আমরা ধারাবাহিকভাবে এ আলোচনা ও অনুশীলনী তোমাদের জন্য প্রকাশ করব। ০১. ‘সুদৃষ্টি’ শব্দের প্রমিত উচ্চারণ কোনটি? ক. সুদৃশিট খ. শুদৃস্টি গ. শোদৃশিট ঘ. শুদৃশ্‌টি ০২. ‘আহ্বান’ শব্দের প্রমিত উচ্চারণ কোনটি? ক. আহোব্বান্ খ. আহোভান গ. আউভান্ ঘ. আওভান ০৩. ‘জিহ্বা’ শব্দের উচ্চারণ কোনটি? ক. জিওবা খ. জিউভা গ. জিব্বা ঘ. জিবহা ০৪. ‘অপ্রতুল’ শব্দের সঠিক উচ্চারণ কোনটি? ক. ওপেপ্রাতুল খ. অপ্রোতুল গ. অপ্‌প্রোতুল ঘ.…

Read More

রূপমূলতত্ত্ব ধ্বনিতত্ত্ব ও বাক্যতত্ত্ব

বাংলা ব্যাকরণ

রূপমূলতত্ত্ব কি? ধ্বনিতত্ত্ব কি? বাক্যতত্ত্ব কি? আজকের এই পোস্টে রূপমূলতত্ত্ব ধ্বনিতত্ত্ব ও বাক্যতত্ত্ব কি তা জানবো। রূপমূলতত্ত্ব কি? রূপমূলতত্ত্ব (ইংরেজি: Morphology) নামক ভাষাবিজ্ঞানের শাখায় শব্দের (word) গঠন নিয়ে আলোচনা করা হয়। রূপমূলতত্ত্বে শব্দের রূপ (form) ও অর্থের (meaning) মধ্যকার সম্পর্ক আলোচিত হয়। রূপমূলতাত্ত্বিকেরা শব্দকে একাধিক অর্থপূর্ণ অবিভাজ্য এককে ভাঙার চেষ্টা করেন। শব্দ গঠনকারী এই ন্যূনতম অর্থপূর্ণ এককের নাম দেয়া হয়েছে রূপমূল। শব্দ ভাষার একটি কেন্দ্রীয় ধারণা, ফলশ্রুতিতে রূপমূলতত্ত্বের সাথে ভাষাবিজ্ঞানের অন্যান্য শাখাগুলির নিবিড় সম্পর্ক আছে। রূপমূলতত্ত্ব যেহেতু শব্দের বাহ্যিক ধ্বনিগত রূপের সাথে সম্পর্কিত, সেহেতু এটি ধ্বনিতত্ত্বের সাথেও সম্পর্কিত। এই দুই…

Read More

উপসর্গ কাকে বলে? উপসর্গ কত প্রকার ও কি কি?

বাংলা ভাষায় বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় শব্দ থেকে নতুন শব্দ তৈরি হয়। উপসর্গ নতুন শব্দগঠনের একটি প্রক্রিয়া। উপসর্গগুলো বাংলাভাষার শব্দভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করতে সাহায্য করেছে। বাংলা ব্যাকরণে কিছু শব্দাংশ ব্যবহৃত হয় যাদের কোনো নিজস্ব অর্থ নেই। কিন্তু নিজস্ব অর্থ না থাকলেও এদের অর্থদ্যোতকতা আছে। অর্থাৎ এই শব্দাংশগুলি অন্য শব্দের পূর্বে বসে শব্দগুলির অর্থের সংকোচন, প্রসারণ, পরিবর্ধন, পরিবর্তন সবই করতে পারে।উপসর্গ কাকে বলে? উপসর্গ কত প্রকার ও কি কি? এভাবে এই শব্দগুলি বাংলা ভাষায় প্রতিনিয়ত নতুন নতুন শব্দ তৈরিতে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখে। এই অর্থবিহীন শব্দাংশগুলোকে উপসর্গ বলা হয়। তবে কোন উপসর্গগুলি কোন শব্দের সঙ্গে…

Read More

বাংলা উপসর্গ কাকে বলে? বাংলা উপসর্গের বৈশিষ্ট্য ও উদাহরণ?

বাংলা উপসর্গ কাকে বলে? বাংলা ভাষার শব্দভাণ্ডারের বহু অসংস্কৃত শব্দে সংস্কৃত উপসর্গের মত কতগুলো অব্যয়বাচক শব্দাংশ শব্দের আগে ব্যবহৃ হতে দেখা যায়। এই শব্দাংশগুলোর স্বতন্ত্রভাবে তেমন কোন অর্থ প্রকাশ করে না; কিন্তু অর্থযুক্ত শব্দের পূর্বে বসে নতুন শব্দ গঠন করতে সাহায্য করে। এই অব্যয়বাচক শব্দাংশগুলোকে বাংলা উপসর্গ বলে। যে বাংলা অব্যয়াবাচক শব্দাংশগুলো শব্দের পূর্বে বসে অর্থবোধক নতুন শব্দ গঠন করে তাকে বাংলা উপসর্গ বলে। যেসব অব্যয় জাতীয় শব্দ বা শব্দাংশ বাংলা শব্দের পূর্বে বসে নতুন শব্দ গঠন করে তাদেরকে বাংলা উপসর্গ বলা হয়। বাংলা উপসর্গের বৈশিষ্ট্য- ১. বাংলা উপসর্গগুলোকে খাঁটি…

Read More

রূপমূলতত্ত্ব কি

বাংলা ব্যাকরণ

রূপমূলতত্ত্ব কি? রূপমূলতত্ত্ব হল ভাষাবিজ্ঞানের একটি শাখা যা শব্দের গঠন এবং অর্থের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করে। বাংলা রূপমূলতত্ত্বে, বাংলা ভাষার শব্দগুলিকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়: মূল শব্দ: মূল শব্দগুলিকে আরও ছোট শব্দে বিভক্ত করা যায় না। যেমন: “পড়া”, “লেখ”, “ভালো” সমাস শব্দ: সমাস শব্দগুলি দুটি বা ততোধিক শব্দের সংযোগে গঠিত হয়। যেমন: “পড়াশোনা”, “লেখাপড়া”, “ভালোবাসা” উপসর্গ শব্দ: উপসর্গ শব্দগুলি মূল শব্দের আগে যুক্ত হয়ে নতুন অর্থ প্রকাশ করে। যেমন: “অতি + বৃষ্টি = অতিবৃষ্টি”, “উপ + প্রচার = উপপ্রচার” মূল শব্দ মূল শব্দগুলি বাংলা ভাষার সবচেয়ে মৌলিক অংশ। এগুলিকে…

Read More