যবিপ্রবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মাতৃভাষা দিবস পালিত

ওয়াশিম আকরাম, যবিপ্রবি প্রতিনিধি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহরে পুস্পস্তবক অর্পণ, দ্বীপ-শিখা প্রজ্জ্বালন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রভাতফেরিসহ নানা কর্মসূচিতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে। যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনের কর্মসূচি শুরু হয় রাত নয়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দ্বীপ-শিখা প্রজ্জ্বালনের মাধ্যমে। এরপর একুশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন কবিতা, গান ও নাটক পরিবেশন করেন। পরে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজন করা হয় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক…

Read More

মর্যাদার সহিত তিতুমীর কলেজে ভাষা দিবস পালিত

আরাফাত হোসেন, জিটিসি একুশ মানে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর শপথ, একুশ মানে অহংকার, একুশ মানে তারুণ্যের জয়গান। হেলায় খেলায় মাতৃভাষা বাংলাকে প্রায়শই অবজ্ঞা করা হচ্ছে। বাংলাকে যত্রতত্রভাবে ব্যবহার করে মায়ের ভাষার অমর্যাদা করা হচ্ছে। এজন্য মাতৃভাষা ও ভাষা শহীদদের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ রাখতে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজে মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। এদিন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে তিতুমীর কলেজের শহীদ বরকত মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য আরও জানান, শুধু শহীদদের বেদিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ…

Read More

মায়ের ভাষার অবক্ষয় নিয়ে তারুণ্য ভাবনা

ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। সালাম-বরকত-রফিক-জব্বারসহ ভাষা শহীদদের বুকের তাজা রক্তের বিনিময়ে আমাদের মাতৃভাষা বাংলা ফিরে পেয়েছি। যার মাধ্যমে সাবলীল ভাবে আমরা মনের ভাব প্রকাশ করতে পারি। এমনি হাজারো ভাবনা ও অনুভুতি থাকে বাংলা ভাষা-ভাষীদের মনে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীদের কিছু ভাবনা তুলে ধরেছেন আজাহার ইসলাম,ইবি। কালের পরিক্রমায় শৈশবে বলা আমার সেই বাংলা ভাষার বর্ণমালা আজ কেমন আছে? তা আজ ভাববার সময় এসেছে। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে বাংলা ভাষার ব্যবহার যেন জগা-খিচুড়ির ভাষায় রূপ নিয়েছে। বাংলার সঙ্গে ইংরেজি মিশিয়ে না বলা নিত্য অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। এ ভাষা আজ হুমকির…

Read More

বাংলা ভাষা হত্যার বিচার কার কাছে দিব?

মো: রিয়াদ হোসেনঃ ১৯৪৭ সালে দ্বিজাতি তত্ত্বের উপর ভিত্তি করে পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্ম হওয়ার পর থেকে পূর্ব পাকিস্তান আর পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যে বৈষম্যমূলক আচরণের কথা আমরা সবাই হয়ত জানি। প্রথম বৈষম্য শুরু হয় ভাষাকে কেন্দ্র করে, যেখানে শতকরা ৫৬ ভাগ মানুষের মুখের ভাষাকে রাষ্ট্রভাষার বদলে উর্দুকে রাষ্ট্র ভাষা করার প্রচেষ্টা চলে। সাহসী বাঙালি সেদিন রক্তের বিনিময়ে সেদিন বাংলা ভাষার মান রাখে। এসব সম্ভব হয়েছে বাংলাকে কেন্দ্র করে বাঙালি জাতীয়তাবোধের তাড়না থেকেই।১৯৭১ সালে বাংলাদেশ মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীন হয়। সৃষ্টি হয় নতুন ভূখণ্ডের নতুন পতাকার, সেই সাথে বাংলা ও পাই রাষ্ট্র…

Read More