চবির সাবেক কর্মচারীর মৃত্যুকে রহস্যজনক সন্দেহ করে ছাত্রলীগের ৫ দফা

চবির সাবেক কর্মচারীর মৃত্যুকে রহস্যজনক সন্দেহ করে ছাত্রলীগের ৫ দফা

চবি টুডে


চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের(চবি) সাবেক কর্মচারী মুহাম্মদ আবুল হোসেনের আকস্মিক মৃত্যুকে রহস্যজনক সন্দেহ করে তদন্তের দাবি জানিয়ে চবি কর্তৃপক্ষকে ৫দফা দাবি সংবলিত স্মারকলিপি প্রদান করেছে চবি ছাত্রলীগ।

সোমবার(১৫ফেব্রুয়ারি) দুপুরে চবি উপচার্য বরাবর এ স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।উপাচার্যের পক্ষে স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন চবি প্রক্টর ড.রবিউল হাসান ভূঁইয়া।

চবি ছাত্রলীগ থেকে বলা হয়,গত ৯ফেব্রুয়ারি সাবেক কর্মচারী মুহাম্মদ আবুল হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদল নেতা ও আমানত হলের কর্মকর্তা কামরুল আলম রাশেদের বাড়িতে ব্যক্তিগত কাজে কর্মরত ছিল।সেখানে কাজ করতে গিয়েই তার আকস্মিক মৃত্যু ঘটে।মৃত্যু পরবর্তীকালে চবি অফিসার সমিতির সভাপতি রশীদুল হায়দার জাবেদ অফিসার সমিতির কার্যালয়ে মৃত হোসেনের পরিবারকে ডেকে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে।এ বিষয়ে চবি ছাত্রলীগ জাবেদকে হস্তক্ষেপের কারণ জিজ্ঞেস করলে তিনি সদুত্তর করতে ব্যর্থ হন।তাই চবি ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এঘটনার তদন্তের দাবি করা হয়।

ছাত্রলীগের দাবীসমূহ হলো- হোসেনের মৃত্যু তদন্ত করা,তার পরিবারের দায়িত্বভার গ্রহণ করা, তার পরিবারের একজন সদস্যকে বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরির ব্যবস্থা করা, অফিসার সমিতির সভাপতি জাবেদের অযাচিত হস্তক্ষেপ ও অনৈতিক প্রস্তাবনার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া এবং কর্মকর্তা রাশেদ কর্তৃক পরিবারের দায়িত্ব ও চাকরির ব্যবস্থা করা ।

এবিষয়ে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, “একজন অফিসার কখনো ব্যক্তিগত কাজে কোন কর্মচারীকে ব্যবহার করতে পারেন না।অফিসার রাশেদের বাড়িতে তার মৃত্যু হয়।তার মৃত্যুকে ধামাচাপা দেবার জন্য অনেক চেষ্টা চালিয়েছে অফিসার সমিতির সভাপতি জাবেদ।তার পরিবারের দায়িত্ব রাশেদকে গ্রহণ করতে হবে।এ ঘটনার তদন্ত দাবি করছি আমরা।’’

এ বিষয়ে চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, “কর্মকর্তা রাশেদ ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলো ।তার বাড়িতে কাজ করার সময় কর্মচারী হোসেনের মৃত্যু হয়।এ ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য অফিসার সমিতির সভাপতি জাবেদ স্বপ্রনোদিত হয়ে সম্পৃক্ত হওয়ার বিষয়টি রহস্যজনক।যেহেতু বিষয়টি গোপনে হচ্ছিল,তারা গোপনে মিটিং করছিল,আমরা ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে চাচ্ছি এটার রহস্য উন্মোচন হোক।’’

এ বিষয়ে চবি প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, “উপাচার্য ববাবর স্মারকলিপিটি পাঠানো হয়েছে।উনার সিদ্ধান্তক্রমে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

স্মারকলিপি প্রদানকালে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি,সাধারণ সম্পাদকসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *