জুতা পায়ে বঙ্গবন্ধুকে বেরোবি উপাচার্যের শ্রদ্ধা, সমালোচনার ঝড়

বেরোবি প্রতিনিধি


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দেশব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনের অংশ হিসেবে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) জুতা পায়ে অস্থায়ী বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদনের ঘটনার রংপুর জুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

আজ ১৭ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর অস্থায়ী প্রতিকৃতির বেদীতে জুতা পায়ে ফুল দেন উপাচার্য ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, রেজিস্ট্রার, ট্রেজারার, প্রক্টর, মুখপাত্র ও জনসংযোগ দপ্তরের সহকারী প্রশাসক।

বিষয়টি জানাজানি হলে বিশ্ববিদ্যালয়সহ রংপুরজুড়ে সমালোচনা শুরু হয়ে। অনেকে এটাকে বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করার অভিযোগ তুলেছেন।

জানা যায়, প্রতিষ্ঠার এক যুগ হলেও বঙ্গবন্ধুর কোন প্রতিকৃতিতে স্থাপন করেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে ফুল দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এদিকে এদিন ফুল দেওয়ার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামাল, ট্রেজারার হাসিবুর রশীদ, প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) আতিউর রহমান, মুখপাত্র ও জনসংযোগ দপ্তরের সহকারী প্রশাসক তাবিউর রহমান প্রধান জুতা পায়ে অস্থায়ী বেদীতে উঠেন। জুতা পায়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বলেন, জুতা পায়ে শ্রদ্ধা জানানো অত্যন্ত ন্যক্কারজনক।বঙ্গবন্ধু পরিষদ এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে। হৃদয় থেকে বঙ্গবন্ধুর চেতনাকে ধারণ করলে তারা এটা করতে পারতোনা। আমি এর প্রতিবাদ জানিয়ে যথাযথ ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. ফরিদ উল ইসলাম এ ঘটনা জাতির জনককে অবমাননা করা বলে অভিহিত করেন। তিনি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, এটা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায়না। সবাই মিলে জুতা পরে ফুল দিতে গেলো আর কেউ দেখলো না?

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তুষার কিবরিয়া বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে এমন উচ্চ মানের মানুষদের কাছ থেকে এরকম ঘটনা কাম্য নয়। এটা চরম সীমালঙ্ঘন ও জাতির পিতাকে সুস্পষ্ট অবমাননা। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবকরা যদি এমন করেন তাহলে জাতি কি শিখবে তাদের কাছে?

উপাচার্যকে মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Comment