‘প্রবেশপত্র’ না পাওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ক্যাম্পাস টুডে ডেস্ক


আট এসএসসি পরীক্ষার্থী প্রবেশপত্র হাতে না পাওয়ায় বিক্ষোভ করেছে। শুক্রবার সকালে ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার চর হরিরামপুর ইউনিয়নের হরিরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে চরভদ্রাসন-ফরিদপুর সড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে এ বিক্ষোভ করে প্রবেশপত্র না পাওয়া ও অন্য পরীক্ষার্থীরা।

পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে বিক্ষোভে যোগ দেয় তাদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

বিক্ষোভকালে প্রবেশপত্র না দিতে পারার ঘটনায় অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ও আইসিটি শিক্ষকের বিচার এবং আটজনের পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে দাবি জানানো হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন সুলতানা ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বিক্ষুব্ধদের শান্ত করেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়টির সভাপতি কে এম ওবায়দুল বারী বলেন, “বিদ্যালয় থেকে এবার ৪৪ জন শিক্ষার্থীর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। আজ সকালে ৩৬ পরীক্ষার্থী প্রবেশপত্র হাতে পেয়েছে। কিন্তু আটজনের প্রবেশপত্র দিতে পারেননি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. লুৎফর রহমান ও আইসিটি শিক্ষক মো. সোহেল রানা। যে আট শিক্ষার্থী প্রবেশপত্র পায়নি তারা হলো সদর ইউনিয়নের টিলারচর গ্রামের আকাশ প্রামাণিক, আল ফাহাদ ব্যাপারী, হারিরামপুর ইউনিয়নের আরজখাঁর ডাঙ্গী গ্রামের রিমন ফকির, হাসান ফকির, দবিরুদ্দীন প্রামাণিক ডাঙ্গী গ্রামের নাফিজা আক্তার, সাদিয়া আক্তার ও চরশালেপুর গ্রামের ঋতুপর্ণা। ওই দুই শিক্ষক প্রতারণার মাধ্যমে ওই শিক্ষার্থীদের ভুল বুঝিয়ে রেখেছিলেন।

এমনকি সোহেল তাদেরকে জাল রেজিট্রেশন কার্ড দিয়েছিলেন। কিন্তু বোর্ডে চেক করে তাদের কোনো তথ্য না পাওয়ায় প্রবেশপত্র দেয়নি বোর্ড কর্তৃপক্ষ। আর ঋতুর কাছ থেকে ফরম পূরণের টাকা নেওয়া হলেও তা ব্যাংকে জমা দেওয়া হয়নি। ফলে তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণে অনিশ্চয়তা রয়েছে।’ অভিযুক্ত শিক্ষক দুজন পলাতক বলে জানান বারী।”

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জেসমিন সুলতানা জানান, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। ওই আট পরীক্ষার্থী যাতে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারে সে ব্যাপারে সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে। পাশাপাশি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Comment