প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইলের গুণগত মান নিয়ে রাবি শিক্ষার্থীদের শঙ্কা

রাবি প্রতিনিধি

ঢাবি, জাবি এবং জবির পরেই প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল পেলো রাজশাহীর বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। তবে ই-মেইলটি নিজ নামের পরিবর্তে স্টুডেন্ট আইডি দিয়ে থাকায় মনঃক্ষুণ্ন শিক্ষার্থীরা। নিজ নামে আইডি না হওয়ায় পরবর্তীতে ব্যবহার ক্ষেত্রে ত্রুটি, এবং হ্যাকিং সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে বলে আশঙ্কা তাদের।

দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী জামান বলেন, রাবি শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের একটি চাওয়া পূরণ হতে যাচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল সুবিধা চালু হওয়ার মাধ্যমে। এটা নিঃসন্দেহে আনন্দের বিষয়। তবে ইমেইলটি স্টুডেন্ট আইডি দিয়ে হওয়ায় কাজের ক্ষেত্রে ত্রুটি হতে পারে। সচারাচর প্রাতিষ্ঠানিক মেইলে যেই বিশেষ সুবিধাগুলো থাকে, আমাদের এই মেইলে তার সবগুলোই সংযোজিত হবে বলে আশা করছি। বিশেষ করে গিটহাব স্টুডেন্ট ডেভলপমেন্ট প্যাক এর ১২ টি সুবিধা উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও মেইল এড্রেসে শিক্ষার্থীদের রোলের পাশাপাশি তাদের নাম সংযুক্তির দাবি করছি।

তারিফ হাসান মেহেদী নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল সুবিধা যেটা অনেক আগে দেয়ার প্রয়োজন ছিলো। সেটা পরে পেয়েও আনন্দ লাগছে। তবে স্টুডেন্ট আইডির বদলে নাম দিয়ে কররে ভাল হতো। সচারাচর প্রতিষ্ঠানিক মেইল আইডির শেষে ‘edu’ থাকে। এটাতে না থাকায় সকল সুবিধে পাবো কি না সেই বিষয়টি নিয়ে শঙ্কায় আছি।

এছাড়াও উদ্বোধনের পর ‘রাজশাহী বিশ্বিবদ্যালয় পরিবার’ নামক একটি ফেসবুক গ্রুপে এবিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ করা গেছে। অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা ইমেইল আইডির গুণগত মান নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে।

জানা গেছে- ‘ই-মেইল সুবিধাটি গুগলের জি-সুইট এর আওতায় সম্পূর্ণ ফ্রি-তে নেয়া হয়েছে। প্রায় ৪০, হাজার মেইল একই সাথে সক্রিয় রাখতে নামের পরিবর্তে স্টুডেন্ট আইডি ব্যবহার করা হয়েছে।’ তবে এক্ষেত্রে অক্সফোর্ড, ক্যামব্রিজসহ বিশ্বের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েও অর্থ ব্যয়ে প্রতিষ্ঠানিক ই-মেইলে শিক্ষার্থীদের নাম ব্যবহার করেছে। এক্ষেত্রে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় দেশের অন্যতম বিদ্যাপীঠ হয়েও ‘নির্ভরযোগ্য ও গুণগত’ মানের প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল সরবরাহ করতে পারছে কি না প্রশ্ন থেকেই যায়।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. বাবুল ইসলাম বলেন, আমাদের প্রদানকৃত ইমেইলের গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন করার সুযোগ থাকবে না আশা করছি। একই সময় প্রায় ৪০, হাজার মেইল সক্রিয় থাকবে তাই নাম এর থেকে স্টুডেন্ট আইডি দিয়ে করাটা সুবিধাজনক ও নির্ভরযোগ্য। এছাড়াও প্রত্যেক শিক্ষার্থীর আলাদা আলাদা মেইল পাসওয়ার্ড থাকবে, এতে করে হ্যাকিং-এর সুযোগ নেই বললেই চলে। তবে শিক্ষার্থীরা যদি নিজ নামে আইডি চায় তাহলে সেটা পরবর্তীতে আমাদের কমিটির সাথে আলোচনা করে দেয়া যাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সূত্রে জানা গেছে- শিক্ষার্থীরা তাদের নিজস্ব ই-মেইল আইডির জন্য আবেদন করতে পারবে। এর জন্য প্রথমে http://emailapp.ru.ac.bd-তে সাইন-আপ করতে হবে। আবেদনটির ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হলে আবেদন ফরমে প্রদত্ত ভেরিফিকেশন ই-মেইলে লগ-ইন সম্পর্কিত তথ্য পাঠানো হবে। পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে http://mail.ru.ac.bd-তে লগ-ইন করে ই-মেইল সেবাটি ব্যবহার করা যাবে। এই সুবিধাটি ছাত্রত্ব শেষ হওয়ার পর ৬ মাস পর্যন্ত চালু থাকবে। তবে কারো গবেষণা বা বৃত্তির জন্য মেয়াদ বাড়ানোর প্রয়োজন হলে আবেদনের প্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

এর আগে রোববার বেলা ১১ টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইলের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান।

এসময় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও চৌধুরী মো. জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারী, প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টা (অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রাপ্ত) অধ্যাপক লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক মো. আজিজুর রহমান, বিভিন্ন অনুষদের অধিকর্তা, বিভাগীয় সভাপতি ও ইনস্টিটিউট পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তামণ্ডলী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপাচার্য বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রয়োজন বিবেচনা করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল সেবা চালু করলো। এর ফলে সংশ্লিষ্ট সকলের উচ্চশিক্ষা, গবেষণা ও প্রাসঙ্গিক বিষয়ে দেশ-বিদেশে যোগাযোগসহ অন্যান্য সেবা গ্রহণ সহজতর হলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Comment