বর্ষ পরীক্ষায় ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে জালিয়াতি, আটক ২

বর্ষ পরীক্ষায় ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে জালিয়াতি, আটক ২

সানজিদ আরা সরকার বিথী, ঢাবি


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের বিভিন্ন বর্ষের পরীক্ষায় অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ফেইসবুক ব্যবহার করে সম্প্রতি একটি জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে বড় অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

এর প্রেক্ষিতে আজ বুধবার (২২ জুলাই) র‌্যাব-৩ এই চক্রের মূল হোতাসহ দুজনকে আটক করে।

এসময় প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ল্যাপটপ, মোবাইল ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হলেন: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মোঃ সাদেক মিয়া ওরফে শিশু মিয়া ছেলে মাসুম রানা রনি (২৪); হবিগঞ্জ জেলার চুনারঘাটের মোঃ বাচ্চু মিয়ার ছেলে মোঃ আব্দুর রহিম সাদেক (২২)।

এই ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আজ ২২ জুলাই শাহবাগ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৩/২৪/৩০/৩৫ ধারায় একটি মামলা রুজু করা হয়, যার নং ২৮।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা অভিযোগ আনে ফয়সাল মাহবুব নামে জাল একাউন্ট ব্যবহার করে জালিয়াতি চক্র সাত কলেজের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে।সাত কলেজের বিভিন্ন গ্রুপে কমেন্ট করে টাকার বিনিময়ে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়ায় জালিয়াত চক্রের ফাঁদে পড়ে অনেক শিক্ষার্থী বিকাশের মাধ্যমে টাকা দেয়।

ঢাবির অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে এই জালিয়াতি ঘটনাতে আজ দুইজন আটক হওয়ার পর আজ বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঢাবি প্রশাসন শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের সতর্কীকরণ করে কোনো প্রকার আর্থিক লেনদেন এবং জালিয়াতি চক্রের ফাঁদে পা না দিতে আহবান করে বলা হয়েছে, ‘এ ধরনের জালিয়াতি যারা করবে বা যারা এর আশ্রয় নেবে তারা আইনগতভাবে অপরাধী হবে।

তাই প্রতারক চক্রের ফাঁদে পা দিয়ে যেন আইনগত অবস্থার মুখোমুখি না হতে হয়, সে বিষয়ে অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের সচেতন ও সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

‘ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস ও প্রক্টরিয়াল বডি সকল জালিয়াতির ব্যাপারে সদা সক্রিয় রয়েছে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।’

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি ৭ কলেজের বিভিন্ন বর্ষের পরীক্ষায় অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে একটি জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন ধরে বিশাল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।’

উল্লেখ্য, এই বিষয়টি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মহোদয় গত ১ জুলাই ২০২০ তারিখে শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন এবং র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *