বাড়ি ভাড়া দিতে না পারায় মা ও মেয়ে নির্যাতনের শিকার

সারাদেশ টুডেঃ করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ সংক্রমণে লক ডাউন এর জন্য রিকশা চালাতে ব্যর্থ হওয়ার কারনে এক মাস বাড়ি ভাড়া দিতে না পারায় ভাড়াটিয়ার বউ ও মেয়ে কে নির্যাতন করেন বাড়ি মালিক। এমনি ঘটনা ঘটেছে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে।

পৌরসভায় মাত্র এক মাসের ভাড়া বাকি থাকায় বাড়ির মালিক তার স্ত্রী ও মেয়ে মিলে ভাড়াটিয়ার স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করেছে। ঘটনার পর থেকে বাসার মালিক রফে মিয়া পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে।ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে পৌরসভার রাজনগর গ্রামে। এ ঘটনায় আহত ভাড়াটিয়া জাহানারা বেগমের স্বামী রিকশা চালক আব্বাস মিয়া রাতেই মির্জাপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামের রিকশা চালক আব্বাস মিয়া পৌরসভার নয় নম্বর ওয়ার্ডের রাজনগর গ্রামের রফে মিয়ার বাড়িতে একটি টিনের ঘর ৭০০ টাকায় ভাড়া নিয়ে বসবাস করছেন। বর্তমান করোনার প্রভাবে আব্বাস মিয়া কর্মহীন হয়ে পড়ায় গত মার্চ মাসের ঘরভাড়া দিতে পারেননি।

এদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে বাড়ির মালিক রফে মিয়া আব্বাস মিয়ার স্ত্রী জাহানারা বেগমের কাছে ঘরভাড়া চান। কিন্তু করোনার কারণে ঘরভাড়া পরে নিতে হবে বললে রফে মিয়ার সাথে তার কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রফে মিয়া, তার মেয়ে রোকসানা ও স্ত্রী হাজেরা বেগম ভাড়াটিয়া জাহানারাকে মারপিট করেন। এতে জাহানারার ডান হাত মচকে যায় বলে স্বামী আব্বাস মিয়া জানিয়েছেন।

আহত জাহানারার স্বামী রাতেই বাড়ির মালিক রফে মিয়াসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মির্জাপুর থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা মির্জাপুর থানার এস আই মিজানুর রহমান সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘরভাড়া নিয়ে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে ভাড়াটিয়া ও বাড়ির মালিকের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।বাড়ির মালিক রফেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Comment