বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ১১:১৮ অপরাহ্ন

বিভাগ একীভূতকরণের দাবির বিপক্ষে ইইই শিক্ষার্থীদের সংবাদ সম্মেলন, বিক্ষোভ মিছিল

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২০, ৪.৪৩ পিএম

বশেমুরবিপ্রবি টুডেঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগকে ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের সাথে একীভূতকরণের দাবির বিপক্ষে সংবাদ সম্মেলন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বিস্তারিত বিবরণসহ তাদের অবস্থান উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রারের নিকটও তারা একটি স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

সকাল ১১.৩০ এ একাডেমিক ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুর রহমান। এ সময় তিনি বলেন, “ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন যাবৎ যে দাবিটি করে আসছেন সেটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলাদেশ তৈরির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক চালুকৃত একটি বিশেষায়িত বিভাগ বন্ধ করে দেয়ার ষড়যন্ত্র হিসেবে প্রতিয়মান হচ্ছে। এছাড়া তারা দাবি করছে তাদের এবং আমাদের পাঠ্যক্রম প্রায় একই। কিন্তু তাদের এবং আমাদের পাঠ্যক্রমে প্রায় ৪০ শতাংশ অমিল রয়েছে।”

এসময় তিনি আরো বলেন যে, ” নিজেদের প্রচেষ্টা থাকলে ইটিই বিভাগ থেকেও ভালো কিছু করা সম্ভব এবং যদি ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের বিভাগের মান উন্নয়নসহ ইটিই শিক্ষার্থীদের কর্মক্ষেত্রে অধিক সুযোগ সৃষ্টি ও নিজেদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করে তাহলে অবশ্যই ইইই শিক্ষার্থীরা তাদের পাশে থাকবে।

পরবতীতে দুপুর ১২ টায় ইইই শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি একাডেমিক ভবন থেকে শুরু হয়ে জয়বাংলা চত্বর প্রদক্ষিণ করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে সমাপ্ত হয়। বিক্ষোভ মিছিল শেষে দুপুর ১.০০ টায় তারা ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোঃ মোরাদ হোসেনের নিকট স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।

এদিকে ইটিই বিভাগকে ইইই বিভাগের সাথে একীভূতকরণের দাবিতে অনশন কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে ইটিই শিক্ষার্থীরা। এখন পর্যন্ত অনশন কর্মসূচিতে ১৫ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন যাদের মধ্যে ৫ জন বর্তমানে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রাজিউর রহমান জানান, “বিষয়টি সমাধানে গত ২০ জানুয়ারি ১৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ২৫ জানুয়ারি বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।”

উল্লেখ্য, ইটিই গ্রাজুয়েটদের চাকরির সুযোগ ক্রমাগত কমে যাচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে ২০১৯ এর ১৭ অক্টোবর থেকে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন করছে ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today