রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১২:৫৭ অপরাহ্ন

মনোহরদীতে করোনা প্রতিরোধ সচেতনতায় কঠোর প্রশাসন

  • আপডেট টাইম রবিবার, ৫ এপ্রিল, ২০২০, ১২.০০ পিএম

মোঃ আল – ফাহাদ


মনোহরদীতে করোনা প্রতিরোধ সচেতনতায় প্রশাসনের কঠোর নজরদারি চলছে। নরসিংদীর মনোহরদীতে সড়ক, হাট-বাজার এবং মোড়ে জন সমাগম কমাতে কঠোর হয়েছে উপজেলা প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

বিজ্ঞাপন

করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতার পাশাপাশি অপ্রয়োজনে সড়কে ঘোরাফেরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টিনে তদারকিসহ কার্যকরি ভূমিকা রাখতেই কঠোর অবস্থানে উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা জুড়ে টহল দিচ্ছে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন। করোনার ঝুঁকি এড়াতে মনোহরদীতে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

শনিবার করোনা ভাইরাস (কোভিড -১৯) প্রতিরোধ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব শাফিয়া আক্তার শিমুর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও মনোহরদী থানা পুলিশের টিম সমগ্র উপজেলা মনিটরিং করে।

বিজ্ঞাপন

জেলা রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর (আরডিসি) ও মনোহরদীর সাবেক সহকারী কমিশনার (ভূমি) জনাব আসসাদিক জামানের নেতৃত্বে ও বর্তমান সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মো. ইকবাল হাসান ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জনাব মেহেদী হাসানের সমন্বয়ে একটি টিম মনোহরদী উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন প্রদক্ষিণ করেন।

এসময় সামাজিক দূরত্ব না মানায় ৫ জনকে ১৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।টিমটির সাথে ছিলেন লেবুতলা ইউপির ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বাচ্চু, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বার, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি গন।

বিজ্ঞাপন

মনোহরদীর সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইকবাল হাসান জানান-‘হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিবর্গ সঠিকভাবে সরকারি আদেশ প্রতিপালন করছে কিনা,যারা ঘরের বাইরে অপ্রয়োজনে যারা ঘুরাফেরা করছে তাদেরকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যবস্থা,যেসব দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ আছে তা বাস্তবে মানছে কিনা,বাজারের দাম ঠিক রাখাসহ নানাবিধ বিষয়ে তদারকি করা হয় ও আইনানুগ দিকটি বাস্তবায়নের জন্যে মনিটরিং করা হয়।’

এদিকে উপজেলার শুকুন্দী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাফিয়া আক্তার শিমু।

বিজ্ঞাপন

এময় তিনি বলেন-‘মনোহরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, “উপজেলায় করোনাভাইরাসেরপ্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র দিনমজুর রিকশাওয়ালা ও নিম্নআয়ের দুই হাজারের অধিক পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। যেখানেই নিম্ন আয়ের লোক পাওয়া যাবে সেখানেই এ সহায়তা দেওয়া হবে। আমাদের কাছে পর্যাপ্ত খাদ্য শস্য মজুদ আছে। সুতরাং সহায়তার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হবে না।

এছাড়া সড়ক এবং হাট-বাজারে যাতে লোকজন জড়ো হতে না পারে সেজন্য আমাদের কঠোর নজরদারী চলছে। সরকারি নির্দেশ যারা অমান্য করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

বিজ্ঞাপন

The Campus Today YouTube Channel

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazar_creativenews_II7
All rights reserved © 2019-20 The Campus Today