‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ মনোনীত হয়েছেন খুবি ট্রেজারার সাধন রঞ্জন ঘোষ

‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ মনোনীত হয়েছেন খুবি ট্রেজারার সাধন রঞ্জন ঘোষ

খুবি প্রতিনিধিঃ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ ২০২০ সালের বাংলা একাডেমি রবীন্দ্র পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন। তিনি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে সমধিক পরিচিত। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী নিজে টেলিফোন করে বিষয়টি জানিয়েছেন তাঁকে।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে এ সম্মাননা দেয়া হবে রবীন্দ্র গবেষক প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষকে। প্রতি বছর সারাদেশের একজনকে রবীন্দ্র গবেষণা ও চর্চায় বিশেষ অবদান রাখায় এ সম্মাননা দেয়া হয়। এবছরে এ সন্মাননা পাচ্ছেন খুবির ট্রেজারার সাধন রঞ্জন ঘোষ।

জানা যায় যে, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার হিসেবে যোগদান করেন। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ১৯৯০ এর ১৪(১) ধারা অনুযায়ী মহামান্য রাষ্ট্রপতি (চ্যান্সেলর) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁকে নিয়োগ দেন। এর আগে তিনি সরকারি বিএল কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন এবং পরবর্তীতে অবসরগ্রহন করেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন বাংলা ভাষা ও সাহিত্য ডিসিপ্লিনে তিনি শিক্ষক হিসেবে পাঠদান করেছেন। শিক্ষাবিদ, সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে তিনি খুলনাসহ সর্বত্রই সমধিক পরিচিত এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি দৈনিক জন্মভূমি পত্রিকার উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ ১৯৪৯ সালের ৮ জানুয়ারি বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মাদারীপুরের চরমুগুরিয়া মার্চেন্টস হাইস্কুল থেকে ১৯৬৪ সালে এসএসসি ও সেখানকার নাজিমুদ্দিন কলেজ থেকে ১৯৬৬ সালে এইচএসসি পাস করার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনার্সসহ মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন।

তিনি ১৯৭২ সালে সরকারি বিএল কলেজে প্রভাষক হিসেবে শিক্ষাকতা জীবন শুরু করেন। দীর্ঘদিন সুনাম ও সাফল্যের সাথে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত থেকে ২০০৬ সালের জানুয়ারি মাসে সরকারি বিএল কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন শেষে সেখান থেকেই তিনি অবসরগ্রহণ করেন।

শিল্প-সাহিত্যের ওপর তাঁর রচিত বহুসংখ্যক প্রবন্ধ, নিবন্ধ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও গবেষণা গ্রন্থে প্রকাশিত হয়েছে। তিনি নাটকের উপরে একটি বইও রচনা করেছেন। তার রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী হিসেবেও বেশ সুখ্যাতি রয়েছে। এই সুখ্যাতিই তাকে জাতীয় পর্যায়ের সর্বশেষ সম্মানটি বয়ে আনছে আগামী ২৬ ডিসেম্বর। এই সাফল্য খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বড় একটি অর্জন হবে বলে সকলে তাঁকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Comment