রাবি প্রশাসনের অপসারণ চেয়ে সাত দিনের আল্টিমেটাম

রাবি প্রশাসনের অপসারণ চেয়ে সাত দিনের আল্টিমেটাম

রাবি প্রতিনিধি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েরর (রাবি) উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান ও উপ-উপাচার্য চৌধুরী মো. জাকারিয়ার অপসারণ চেয়ে সাত দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ‘সন্ত্রাস ও দুর্নীতি বিরোধী’ মঞ্চ। দাবি আদায় না হলে ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় বাঁচাও আন্দোলনে’ তারা লাগাতার কর্মসূচির ঘোষণাও দেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলা চত্বরে এক সংবাদ সম্মেলনে এই আল্টিমেটাম দেন তারা।

সম্মেলনে ছাত্র ফেডারেশন রাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক মহব্বত হোসেন মিলন বলেন, আমরা বিভিন্ন জাতীয় ও অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে জানতে পেরেছি, রাবির অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে গঠিত ইউজিসির তদন্ত কমিটি সরেজমিনে দুই দফা তদন্ত করে উপাচার্য, উপ-উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারসহ বর্তমান প্রশাসনের বিরুদ্ধে ২৫ টি অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রমাণ পেয়েছে। তদন্ত কমিটি ২০ ও ২১ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়, শিক্ষামন্ত্রণালয় ও দুর্নীতি দমন কমিশনে প্রতিবেদনটি জমা দিয়েছে। পরবর্তীতে রেজিস্ট্রার পদত্যাগ করলেও প্রমাণ পাওয়া সত্ত্বেও উপাচার্য, উপ-উপাচার্যকে অপসারণ করার কার্যকর কোনো পদক্ষেপ দেখতে পাচ্ছি না। যা আমাদেরকে আশাহত করেছে।’

লিখিত বক্তব্যে মিলন আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে শিক্ষা, সাহিত্য-সংস্কৃতি, মানবিক ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ এবং জ্ঞান বিকাশের প্রাণ কেন্দ্র। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়েই যদি দুর্নীতি চলে এবং দুর্নীতিবাজরাই ক্ষমতায় থাকে তাহলে বিশ্ববিদ্যালয় তার প্রকৃত স্বকীয়তা হারিয়ে ফেলবে। অনিয়ম ও দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিদের দ্বারা বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারেনা। যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ও শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে যেমন আমরা তা মেনে নিতে পারি না, তেমনি দেশের কোন মানুষ এই অপরাধকে সহ্য করবেন না। ফলে আমরা আচার্যসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ রাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ, দপ্তর সম্পাদক রাকিব হাসান, রাকসু আন্দোলর মঞ্চের পক্ষে আলহাজ হোসেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *